| বাংলার জন্য ক্লিক করুন

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   সারাদেশ -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
জাতীয় মানবাধিকার কমিশন চেয়ারম্যানের কক্সবাজার কারাগার পরিদর্শন

কক্সবাজার প্রতিনিধি :
কক্সবাজার জেলা কারাগার পরিদর্শন করলেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশন চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক। তিনি ৫ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টায় কক্সবাজার জেলা কারাগারে পৌঁছালে জেল সুপার বজলুর রশিদ আখন্দ, জেলার রীতেশ চাকমা ও ডেপুটি জেলার অর্পন চৌধুরী ফার্মাসিষ্ট ফখরুল আজিম চৌধুরী হেলাল কর্মকর্তারা ফুল দিয়ে স্বাগত জানান। পরিদর্শনকালে মানবাধিকার চেয়ারম্যান কারাগারের বিভিন্ন ওয়ার্ড ঘুরে দেখেন এবং বন্দীদের সাথে কথা বলেন। যাদের মামলা চালানোর সামর্থ নেই তাদের লিগ্যাল এইড কমিটির মাধ্যমে আইনী সহায়তা নেওয়া পরামর্শ দেন।
কক্সবাজার জেলা কারাগারে ধারণ ক্ষমতার চেয়ে ৮ গুন বন্দী থাকার বিষয়টি নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে নির্মানাধীন ৬ তলা ভবনের কাজ দ্রুত সমাপ্ত করার পরামর্শ প্রদান করেন। তিনি কারা অভ্যান্তরে সুন্দর পরিবেশ, মহিলা কয়েদির বাচ্চাদের জন্য শিশুপার্ক, বিশুদ্ধ পানীয় জলের সু-ব্যবস্থা, রান্নাঘর, বিভিন্ন সামাজিক ও উন্নয়নমূলক কাজের দৃশ্য, দেয়ালে মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর ভাষনের কারুকার্য, দর্শনার্থীদের জন্য অপেক্ষা ঘরসহ সার্বিক পরিস্থিতি দেখে মুগ্ধ হন এবং সন্তোষ প্রকাশ করেন। পরিদর্শনকালে আরও উপস্থিত ছিলেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের পরিচালক আল মাহমুদ ফয়জুল কবির, কাজী আরফান আশিক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আশরাফুল আফসারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা।

জাতীয় মানবাধিকার কমিশন চেয়ারম্যানের কক্সবাজার কারাগার পরিদর্শন
                                  

কক্সবাজার প্রতিনিধি :
কক্সবাজার জেলা কারাগার পরিদর্শন করলেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশন চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক। তিনি ৫ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টায় কক্সবাজার জেলা কারাগারে পৌঁছালে জেল সুপার বজলুর রশিদ আখন্দ, জেলার রীতেশ চাকমা ও ডেপুটি জেলার অর্পন চৌধুরী ফার্মাসিষ্ট ফখরুল আজিম চৌধুরী হেলাল কর্মকর্তারা ফুল দিয়ে স্বাগত জানান। পরিদর্শনকালে মানবাধিকার চেয়ারম্যান কারাগারের বিভিন্ন ওয়ার্ড ঘুরে দেখেন এবং বন্দীদের সাথে কথা বলেন। যাদের মামলা চালানোর সামর্থ নেই তাদের লিগ্যাল এইড কমিটির মাধ্যমে আইনী সহায়তা নেওয়া পরামর্শ দেন।
কক্সবাজার জেলা কারাগারে ধারণ ক্ষমতার চেয়ে ৮ গুন বন্দী থাকার বিষয়টি নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে নির্মানাধীন ৬ তলা ভবনের কাজ দ্রুত সমাপ্ত করার পরামর্শ প্রদান করেন। তিনি কারা অভ্যান্তরে সুন্দর পরিবেশ, মহিলা কয়েদির বাচ্চাদের জন্য শিশুপার্ক, বিশুদ্ধ পানীয় জলের সু-ব্যবস্থা, রান্নাঘর, বিভিন্ন সামাজিক ও উন্নয়নমূলক কাজের দৃশ্য, দেয়ালে মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর ভাষনের কারুকার্য, দর্শনার্থীদের জন্য অপেক্ষা ঘরসহ সার্বিক পরিস্থিতি দেখে মুগ্ধ হন এবং সন্তোষ প্রকাশ করেন। পরিদর্শনকালে আরও উপস্থিত ছিলেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের পরিচালক আল মাহমুদ ফয়জুল কবির, কাজী আরফান আশিক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আশরাফুল আফসারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা।

নাটোরের সিংড়ায় শীতবস্ত্র বিতরণ
                                  

মো. এমরান আলী রানা, সিংড়া(নাটোর) প্রতিনিধি।
নাটোরের সিংড়ায় রিসোর্স ইন্টিগ্রেশন সেন্টার (রিক) এর আয়োজনে ৩০ জানুয়ারি প্রবীণদের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরন করা। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুশান্ত কুমার মাহাতো। এছাড়া উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ উপস্থিত ছিলেন সিংড়া থানা অফিসার ইনচার্জ মো. মনিরুল ইসলাম,সিনায়র এরিয়া ম্যানেজার রিক নওগাঁ জোন মুহা. আব্দুল আলীম,এরিয়া ম্যানেজার রিক নাটোর মো. আবুল কালাম আজাদ,শাখা ব্যাবস্থাপক সিংড়া রিক মো. উসুফ আলী,ইউ ডিএফ,কর্মকর্তা আছাফুল ইসলাম,সিংড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. এমরান আলী রানা প্রমুখ।
-

রংপুরে অ্যাডভোকেট রথীশ হত্যার রায় : স্ত্রী স্নিগ্ধার মৃত্যুদন্ড
                                  

সবুজ আলী আপন, রংপুর :
রংপুর বিশেষ জজ আদালতের পিপি ও আওয়ামীলীগ নেতা অ্যাডভোকেট রথীশ চন্দ্র ভৌমিক বাবুসোনা হত্যা মামলায় স্ত্রী সিগ্ধা সরকারের মৃত্যুদন্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত। আলোচিত রথীশ চন্দ্র হত্যা মামলায় মোট ৩৭জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে ২৯ জানুয়ারি রংপুর জেলার সিনিয়র দায়রা জজ আদালতের বিচারক এবিএম নিজামুল হক এ আদেশ দেন। রায় ঘোষণার সময় প্রধান আসামি রথীশ চন্দ্রের স্ত্রী দীপা ভৌমিক ওরফে স্নিগ্ধা সরকার কে রংপুর কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে জেলা দায়রা জজ আদালতে নিয়ে আসা হয়।
উল্লেখ্য, গত বছরের ২৯ মার্চ রাতে পরকীয়া প্রেমের জেরে আইনজীবী রথীশ ভৌমিককে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন স্ত্রী সিগ্ধা ও মামলার অপর আসামী প্রেমিক কামরুল হাসান (যিনি রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রিজন সেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন)।
রথীশকে হত্যার পর তার লাশ তাজহাট মোল্লাপাড়ায় একটি নির্মাণাধীন বাড়ির ঘরে পুঁতে রাখা হয়। ৩ এপ্রিল রাতে রথীশের স্ত্রী দীপা ভৌমিক ওরফে স্নিগ্ধাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য র‌্যাব আটক করে। তিনি হত্যাকান্ডের কথা স্বীকার করেন এবং লাশের অবস্থান সম্পর্কে জানান।
সেই সূত্র ধরে ওই দিন রাতে ঘরের মেঝে খুঁড়ে রথীশের গলিত লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের ছোটভাই সুশান্ত ভৌমিক বাদী হয়ে একটি মামলা করেন। হত্যাকা-ের ঘটনায় দীপা ও কামরুল ইসলামকে অভিযুক্ত করে ১৩ সেপ্টেম্বর অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আরিফা ইয়াসমীন মুক্তার আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা তৎকালীন রংপুর কোতোয়ালি থানার এসআই আল-আমিন। পরে ২৬ সেপ্টেম্বর শুনানি শেষে মামলাটি জেলা ও দায়রা জজ আদালতে বদলির আদেশ দেন বিচারক। গত ২১ অক্টোবর চার্জশিট আমলে নিয়ে বিচার কার্যক্রম শুরুর আদেশ দেন বিচারক।

সম্পাদকের পিতা আবদুল হামিদের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী পালিত
                                  


সম্পাদকের পিতা আবদুল হামিদের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী পালিত
হাজারো নক্ষত্রের মাঝে আছো তুমি, ঐ নীল আকাশের ধ্রুবতারায়
আজাদ রুহুল আমিন,বাগেরহাট থেকে:
আজাদ রুহুল আমিন, অপলক দৃষ্টিতে চেয়ে থাকি । নয়নাভিরাম বলেশ্বর বিধৌত সবুজ বেষ্টিত ছোট্ট একটি সুন্দর গ্রাম । নাম তার কচুয়ার সহবৎকাঠী । এ গ্রামেই জন্ম নিয়েছিলেন অতি সহজ সরল সাদা মাটা একজন সাধারন নির্লোভ মানুষ । মানুষের ক্ষতি কি তিনি তা বুঝতেন না । যা আজ আমাদের অনুস্মরনীয়, অনুকরনীয় আর অনুপ্রেরনা জোগায় প্রতিনিয়ত । মানুষের হিতকর কাজে সর্বদা এগিয়ে আসতেন যিনি । তিনি আজ আর আমাদের মাঝে নেই ।
সেই মেঠো পথের নিভৃত পল্লীর অতি পরম শ্রদ্ধেয় আব্দুল হামিদ শেখ মানবাধিকার খবর পত্রিকার প্রকাশক, সম্পাদক রোটারিয়ান মোঃ রিয়াজ উদ্দিনের পরম পিতা । যার জন্ম শৈশব, কৈশোর, যৌবন কেটেছে জীবনের সব সময়টুকু জুড়ে । যিনি গত দু বছর আগে ছেড়ে গেছেন মায়ার পৃথিবী । সন্তান হিসেবে আমরা কি আদৌ ভুলতে পারবো ? সারা জীবন সন্তান হিসেবে পিতার পরম স্নেহ, ভালোবাসা। আদর মমতা মাখানো সুরে নাম ধরে ডাকতেন । সেই মিষ্টি মধুর হাঁসি কান্নায় মিশে আছেন এ মাটির সন্তান মরহুম আব্দুল হামিদ ।
পরম শ্রদ্ধেয় মানুষটি যিনি আমাদের কাছে অসাধারন । হৃদয়কে উজ্জীবিত করে । আলোকিত করে । আজ তার দ্বিতীয় মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে যেখানে তিনি শৈশবে বেড়ে উঠেছেন । সাতার কেটেছেন প্রমত্তা বলেশ্বর নদী পাড়ি দিয়ে জয় করেছেন মনের পৃথিবীকে । সেই নিবেদিত প্রান স্পন্দন । হৃদয়কে তাড়িত করে তাই তো ছুটে এসেছেন গ্রামের তার প্রিয় স্বজন ভক্ত অনুসারী ।
নিজ গ্রামে আয়োজন করা হয় আলোচনা সভা মিলাদ দোয়া ও ইফতার মাহফিলের । সবাই এক বাক্যে সমস্বরে স্মৃতিচারনে এভাবেই অনুভূতি ব্যক্ত করলেন আব্দুল হামিদ শেখ ছিলেন, একজন অতি ভালো মানুষ । এক সুন্দর মনের অধিকারী। মিষ্টভাষী নরম প্রকৃতির সাথে মিশে যাওয়া যে মানুষটি সারা জীবন সন্তানদের জন্য আমৃত্য তিলে তিলে ভালোবাসা স্নেহের পরশ বুলিয়ে বড় করেছেন । মনের বিশাল রাজপ্রাসাদে এ সন্তানের জন্য সব সময় বুকে আগলে রেখে কেঁদেছেন ।
তিনি মৃত্যুর পূর্বক্ষন পর্যন্ত সন্তানের সফলতা পূর্নতা আর যেন বসবাস যোগ্য এক সুন্দর পৃথিবী গড়তে পারে। অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের স্বাগত জানান এবং অনুষ্ঠানে অংশগ্রহনের জন্য কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন মরহুমের কৃতি সন্তান জনাব রিয়াজ উদ্দিন । মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে বিশেষ প্রার্থনা করা হয় । আল্লাহ যেন তাকে অনন্তকালের জন্য বেহেশত নসীব করেন । তিনি যেন থাকেন শান্তিতে ।
উল্লেখ্য, আব্দুল হামিদ ২০১৬ সালের ২৮ শে মে ৯৭ বছর বয়সে বার্ধক্যজনিত কারনে মৃত্যু বরন করেন । মৃত্যুকালে তিনি সহধর্মীনি, দুই পুত্র, চার কন্যা সহ অসংখ্য আতœীয় স্বজন ও গুনগ্রাহী রেখে গেছেন ।
বাবা হলেন বট বৃক্ষের ছায়া। রোদ বৃষ্টি উপেক্ষা করে ছাতার মত ভালোবাসার বাহুডোরে ছোট্ট কুঁড়েঘরে ছায়ার মত আগলে রাখতেন সন্তান ও পরিবারের সদস্যদের নিরাপদ মাতৃকোলে ।

বাগেরহাটে ভূমিদস্যুদের গ্রাসে তিন কোটি টাকার সরকারী সম্পত্তি
                                  

সারাদেশ
বাগেরহাটে ভূমিদস্যুদের গ্রাসে তিন কোটি টাকার সরকারী সম্পত্তি
॥ফরিদুর রহমান শামীম,বাগেরহাট॥
কচুয়ার বাধাল বাজার সংলগ্ন বিষখালী নদী (বর্তমান খাল),বাধাল-বক্তারকাঠী সিমানার খালের চর সহ প্রায় তিন কোটি টাকার পেরিফেরী ও সরকারী সম্পত্তি বিভিন্ন এলাকার শতাধীক ভুমিদস্যুরা দখল করে তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নির্মান করেছে। অনু-সন্ধানে জানা গেছে, উপজেলার বাধাল বাজারে ৯৫ নং বাধাল মৌজার এস এ ৫০৭ ও ৫২৮ এবং বি আর এস ১৪৫৬, ১৪৫৮, ১১৮০, ১৪২৫ খতিয়ান সহ বিভিন্ন দাগের পেরিফেরী ও সরকারী সম্পত্তি পিরোজপুর জেলার খানাখুনিয়া গ্রামের মৃত মোশারেফ ফকিরের পুত্র কালাম ফকির(অব:আর্মী) ডিপার্টমেন্টাল প্রশাসনের নাম ভাঙ্গীয়ে তার জমির সিমানা সংলগ্ন বিষখালী খালের চর ও খাল দখল করে দ্বীতল ভবন,স-মিল,রাইস মিল,কথিত একটি মসজিদ এবং দোকান ঘর তৈরী করে ব্যবসা করছে।
এছাড়া বিষখালীর মৃত আরোজ আলী শেখের পুত্র আঃ ওহাব শেখ সহ ২৬ জনের নামে ৭৭৩/১৭ নং ল্যান্ড সার্ভে এবং বাধাল গ্রামে মৃত মনিন্দ্র নাথ পালের পুত্র সুকুমার পাল সহ ৫১ জনের নামে ৫০/১৭ দেওয়ানী মামলা রয়েছে। এবং আলতাফ শেখের পুত্র চান শেখ, বাধাল বাজার জামে মসজিদ কমিটি, বিষখালী আবুবক্কর নীকারী, মোসারেফ শেখ, ইলিয়াচ শেখ, কালাম ও সে”ছা সেবক লীগের সাইনবোর্ড দিয়ে দখল করে আছে।
উপজেলার বাধাল গ্রামের মৃত লতিফ শেখের পুত্র এসকেনদার শেখ, মৃত আব্দুল হাই শেখের পুত্র মান্নু শেখ, হাসেম সরদারের পুত্র সাহাজান সরদার, রাম কৃষ্ণ কর্মকারের পুত্র শ্যামল কর্মকার, আলতাফ শেখের পুত্র আলগীর শেখ, মহর আলী সরদারের পুত্র, সুলতান সরদার, হালিম শেখের পুত্র আলহাজ শেখ,দলিল উদ্দিন মোল্লার পুত্র আবুবক্কর মোল্লা, ভান্ডারকোলা গ্রামের জবেদ মল্লিকের পুত্র মোসারেফ মল্লিক, মোড়েলগঞ্জ বলভদ্রপুর গ্রামের গৌরাঙ্গ পালের পুত্র শ্রীবাস পাল, লক্ষ্মীকান্ত পালের পুত্র বাবুল পাল, শরৎ পালের পুত্র পরিমল পাল, কালিদাস পালের পুত্র আনন্দ পাল অবৈধ দখল করেছে। এদের নামে ১২/০৪/১৮ তারিখ রাড়ীপাড়া ইউনিয়ন ভুমী অফিস নোটিশ করেছে। অবৈধ দখলদার কালাম ফকির জানান,আমি কিছু জমি ক্রয় করে সিমানা সংলগ্ন বিষখালীর খালের চর দখল করে আছি। তানিয়ে বাগেরহাট দেওয়ানী আদালতে ৮৩/১০একটি মামলা চলছে।এ মামলা সর্ম্পকে খোজ খবর নিয়ে জানা গেছে, মামলাটির বাদি বলভদ্রপুর গ্রামের বিমল কৃষ্ণ দাস এবং বিবাদী ঝর্ণা রানী দাস। বাধাল বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক শেখ রফিকুল ইসলাম বলেন, কালাম ফকির (অব:আর্মী) এখানে এসে খাল দখল করে স-মিল,রাইস মিল বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নির্র্মান করে প্রবহমান খালে বাধা সৃষ্টি করছে।
এছাড়া বাজারের সরকারী সম্পিত্তি বহু লোক অবৈধ দখল করে আছে। তাদের উচ্ছেদ করা প্রয়োজন।এ ব্যাপারে রাড়ীপাড়া ইউনিয়ন ভুমী সহকারী কর্মকর্তা শেখ শহিদুল ইসলাম জানান,কয়েক কোটি টাকার পেরিফেরী ও সরকারী সম্পত্তি বিভিন্ন লোক দখল করে রেখেছে। আমি সরেজমিনে গিয়ে দখলদারদের তালিকা তৈরী করেছি।
এ পর্যন্ত ১২ জনের বিরুদ্ধে প্রাথমিক পর্যায় নোঠিস করা হয়েছে।
আঃ ওহাব শেখ সহ ২৬ জনের নামে ৭৭৩/১৭ নং ল্যান্ড সার্ভে এবং সুকুমার পাল সহ ৫১ জনের নামে ৫০/১৭ দেওয়ানী মামলা করা হয়েছে।
অবৈধ দখলদার কালাম ফকির জানান,আমি কিছু জমি ক্রয় করে সিমানা সংলগ্ন বিষখালীর খালের চর দখল করে আছি। তানিয়ে বাগেরহাট দেওয়ানী আদালতে ৮৩/১০একটি মামলা চলছে।এ মামলা সর্ম্পকে খোজ খবর নিয়ে জানা গেছে, মামলাটির বাদি বলভদ্রপুর গ্রামের বিমল কৃষ্ণ দাস এবং বিবাদী ঝর্ণা রানী দাস। এ ব্যপারে এলাকাবাসী জানান, অত্র এলাকা সহ আশপাশের প্রায় সকল এলাকার নৌ চলাচলের যে মাধ্যমটি ছিল তা এই দখলের পর বন্ধ হয়ে
গেছে।
এলাকাবাসী এই বিষয়ে উদ্ধতন কর্মকর্তাদের আশু পদক্ষেপ কামনা করছে। এই বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাসমিন ফারহানা জানান, বিষয়টি সর্ম্পকে এমুহুর্তে বলতে পারছিনা, তবে এরকম কিছু হয়ে থাকলে উর্দ্ধতন কর্র্তৃপক্ষের সাথে আলাপ-আলোচনা করে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আটোয়ারীতে সিআরডি কর্তৃক খাদ্য ও কাপড় বিতরণ
                                  


আটোয়ারীতে সিআরডি কর্তৃক খাদ্য ও কাপড় বিতরণ
॥মোঃ জাহেরুল ইসলাম ,পঞ্চগড়॥
পঞ্চগড়ের আটোয়ারীতে সেন্টার ফর রাইটস এন্ড ডেভেলপমেন্ট(সিআরডি) সংস্কার কর্তৃক রমজান ও ঈদ উপলক্ষে ৭০০ জন দুস্থ’ মানুষের মাঝে রমজান ফুড ও ঈদ গিফ্ট বিতরণ করা হয়েছে। ১৭ মে বৃহস্পতিবার সিআরডি কার্যালয় চত্বরে আনুষ্ঠানিকভাবে বিতরণ কাজ সম্পন্ন করা হয়। সিআরডি’র নির্বাহী পরিচালক মোঃ আবু সাঈদ এর সভাপতিত্বে এবং প্রজেক্ট ম্যানেজার মোঃ আমিনুল ইসলামের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ আব্দুর রহমান, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন সুলতানা,আটোয়ারী থানার অফিসার ইনচার্জ আমিনুল ইসলাম উপস্থিত থেকে সিআরডি’র সুবিধাভোগীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রেখে বিতরণ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। সিআরডি অফিস সুত্রে জানাগেছে, প্রতি বছর রমজান শুরু হওয়ার আগেই রোজাদারদের জন্য সিআরডি ফুড প্যাকেজ ও ঈদ গিফ্ট হিসেবে কাপড় বিতরণ করে থাকেন। ফুড প্যাকেজে ১৫কেজি চাউল, ৪কেজি আটা, ২কেজি ছোলা, ৫কেজি আলু, ২কেজি মশুর ডাল, ২কেজি লবন, ২কেজি চিনি, ২লিটার সোয়াবিন তৈল ও ২ ডজন দিয়া শলাই রয়েছে এবং বয়স অনুযায়ী পুরুষ রোজাদারের জন্য জুব্বা, পায়জামা-পাঞ্জাবীর কাপড়, মহিলাদের জন্য শাড়ী ও থ্রি-পিচ বিতরণ করা হয়েছে। তথ্যমতে,৪২৫ জনকে খাদ্য প্যাকেজ এবং ২৭৫ জনের মাঝে কাপড় বিতরণ করা হয়েছে।

 

দৌলতপুর বাঘুটিয়া ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপর্কমের অভিযোগ
                                  


॥রেজাউল করিম, দৌলতপুর॥
মানিকগঞ্জ জেলার দৌলতপুর উপজেলার বাঘুটিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ তোফাজ্জল হোসেন তোতার বিরুদ্ধে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।
অভিযোগ প্রকাশ, দৌলতপুর উপজেলার বাঘুটিয়া ইউপি বাশাইল গ্রামের ছামাদ মওল ও স্ত্রী জহুরা বেগম, ছবুর উদ্দিন, ইসলামপুর গ্রামের মোঃ ফরিদ হোসেন, আব্দুর রহিম, শ্রী পদ্মা, ছামাদ বলেন, আমরা দুর্গত এলাকার হতদরিদ্র মানুষ।
ঘরের অভাবে বৃষ্টিতে বিজে অতিকষ্টে মধ্যে দিয়ে বসবাস করছি। চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেন ও তার কিছু লোকজন দিয়ে ঘর দেওয়ার কথা বলে সে নিজেও ঘুষ বাবদ ১৫/২০ হাজার করে টাকা অন্যান্য লোকদের কাছ থেকে প্রায় ৩ থেকে ৪ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে তার পরম আত্ময়ী দুলাল বেপারী ছেলে রাসেল হোসেন।
ফরিদ হোসেন, ছবুর উদ্দিন আরো বলেন, যে ঘর দিবে ৩/৪ লক্ষ টাকা মূল্য সেখানে ১৫/২০ হাজার টাকা ঘুষ তো দিতেই হয়? আমরা অতিকষ্টে করে দিনমঞ্জু খেটে ধার সুদে টাকা যোগাড় করে ঘুষ দিয়েছি চেয়ারম্যান ও তার লোকজনকে।
মনছের উদ্দিনের ছেলে আনোয়ার, ফরিদ, আজিজ বেপারী, শহিদুল জানান কয়েকদিনের মধ্যে ঘর পাবে কথা থাকলেও আজ ৪/৫ মাস অতিবাহিত হলেও ঘরের কোন ব্যবস্থা হচ্ছে না, বলে জানায় অভিযোগে প্রকাশকারী বাশাইল গ্রামের সাবেক মেম্বার মজিবুর রহমান, ইসলামপুর গ্রামের সাবেক মেম্বার জাবেদুর রহমান, মোঃ হালিম মন্ডল, এস এম সোহরাব শিকদার, জাহাঙ্গীর আলম, হাসান আলীসহ অনেকেই নাম প্রকাশ না করে শর্তে জানায়, দুলাল বেপারী হল চেয়ারম্যানের গভীর আত্মীয়। তাই তিনি প্রতিনিয়ত চেয়ারম্যান সাহেব দুলাল বেপারীর বাড়ীতে যাতায়াত করে থাকেন এবং দুলাল বেপারী ছেলে মোঃ রাসেল নিজকে বিএনপির হোতা হিসাবে পরিচয় দেন। একই গ্রামের মহিদুর মন্ডল ও মোঃ রাসেল এর মাধ্যমে ঘুষের টাকা লেনদেন হয়। চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেন তোতার বিভিন্ন অপর্কম করে এলাকার জনগনকে অতিষ্ট। এব্যাপারে স্থানীয় লোকজন ও বর্তমান বেশ কয়েকজন মেম্বার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে জেলা ও বিভাগীয় প্রশাসনের সু-দৃষ্টি কাম্য।

 

আপনি জানেন কি?
                                  

সিংহের গর্জন ৫ মাইল দূর থেকেও শোনা যায়।
অনেকের ধারণা হাঙ্গর মানুষকে হাতের
কাছে পেলে মেরে ফেলে। কিন্তু মানুষের
হাতেই বেশী হাংগর মারা পড়েছে।
কাচ আসলে বালু থেকে তৈরী।
কৌতুক
ছেলেঃ কোনো সমস্যা নেই মা। পরীক্ষা
এলে তুমি জানিয়ে দিও আমি
বাসায় নেই...মাঃ খুব ভাল করে পড়ো খোকা।
কদিন পরেই কিন্তু তোমার পরীক্ষা আসছে।

কার্টুন
                                  

কার্টুন 

আসিফার আইনজীবীকে ধর্ষণ ও খুনের হুমকি
                                  

॥ মানবাধিকার খবর প্রতিবেদন ॥
কাশ্মিরের কাঠুয়া অঞ্চলে ধর্ষণ ও হত্যার শিকার ৮ বছর বয়সী শিশু আসিফা বানুর জন্য ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার লড়াইয়ে নেমে আইনজীবী দীপিকা এস রাজাওয়াত নিজেই ‘ধর্ষণ ও হত্যার শিকার হওয়ার’ হুমকিতে পড়েছেন। জীবননাশের শঙ্কার কথা জানিয়ে ১৫ এপ্রিল ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভিকে তিনি বলেন, ভারতের সুপ্রিম কোর্টের কাছে সুরক্ষা চাইবেন।
এ বছরের জানুয়ারিতে কাঠুয়ার উপত্যকায় ঘোড়া চড়ানোর সময় অপহরণ করা হয় আসিফাকে। আদালতে দায়ের করা মামলার বিবরণ অনুযায়ী, আসিফা নামের ওই শিশুকে অপহরণের জন্য অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা ও দেবীস্থান মন্দিদের হেফাজতকারী সানজি রাম তার ভাগ্নে ও একজন পুলিশ সদস্যকে নির্দেশ দেয়। নির্দেশ বাস্তবায়নের পর সাত দিন ধরে মন্দিরে আটকে রেখে একদল হিন্দু পুরুষ ধর্ষণ করে আসিফাকে। পরে মাথায় পাথর মেরে ও গলা টিপে হত্যা করা হয় তাকে। আসিফাকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ ও হত্যাকান্ডের ঘটনায় আটজনকে অভিযুক্ত করেছে ভারতের আদালত। মধ্য জানুয়ারির ওই ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ১০ এপ্রিলদিন অভিযোগপত্র জনসম্মুখে আনা হয়। জানুয়ারিতে এ নিয়ে তেমন উত্তেজনা না হলেও এ ঘটনায় অভিযোগপত্র দেওয়ার পর সোচ্চার হয়ে ওঠে বলিউডসহ সারা ভারত।
আসিফার পরিবারের হয়ে মামলা লড়ছেন আইনজীবী দীপিকা এস রাজাওয়াত।  রবিবার এনডিটিভিকে তিনি জানান, তাকেও হুমকি-ধামকি দেওয়া হচ্ছে। দীপিকা বলেন, “আমি জানি না কতদিন জীবিত থাকতে পারব। আমি ধর্ষণের শিকার হতে পারি...আমার সম্মান ক্ষুন্ন করা হতে পারে, আমার ক্ষতি করা হতে পারে। আমাকে হুমকি দিয়ে বলেছে, ‘আমরা তোমাকে ক্ষমা করব না’। আমি সুপ্রিম কোর্টকে বলব যে আমি হুমকিতে আছি।”
১৬ এপ্রিল কাঠুয়ার দায়রা জজ আদালতে আসিফাকে ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় বিচার শুরু হয়েছে। তবে আসিফার পরিবারও নিরাপত্তা শঙ্কায় ভুগছে। এরমধ্যে মালার বিচার কার্যক্রম কাঠুয়া থেকে চগিুড়ে স্থানান্তরের আবেদন জানিয়েছেন আসিফার বাবা। এ ব্যাপারে আইনজীবী দীপিকা বলেন, ‘জম্মুর পরিস্থিতি,কাঠুয়ার আইনজীবীদের বিরোধিতা এবং অভিযোগপত্র দায়ের করতে বাধা দেওয়া দেখে, আমরা শঙ্কিত যে বিচারিক কার্যক্রম শান্তিপূর্ণ হবে না। এ মামলা অন্য কোনও রাজ্যের আদালতে স্থানান্তরের জন্য আমরা সুপ্রিম কোর্টের কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি।’
আসিফাকে ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় অভিযুক্তদের পক্ষ নিয়ে গত মার্চে হিন্দু একতা মঞ্চ নামে একটি সংগঠন সমাবেশ আয়োজন করেছিল। সেখানে ভাষণ দিয়েছিলেন, কাশ্মিরের মুখ্যমন্ত্রী মাহবুবা মুফতি সরকারের শিল্পমন্ত্রী চন্দ্র প্রকাশ গঙ্গা এবং বনমন্ত্রী লাল সিং। এ দুই বিজেপি নেতা অভিযুক্তদের মুক্তির দাবি জানান। চন্দ্র প্রকাশ গঙ্গা অভিযুক্তদের গ্রেফতার নিয়ে বলেন, ‘এ এক মেয়ের মৃত্যু নিয়ে কেন এতো শোরগোল এখানে এমন অনেক মেয়ে মারা যায়।’
আসিফা হত্যার ঘটনায় ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা হবে বলে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বক্তব্যের পর মাহবুবা মুফতি সরকার থেকে পদত্যাগে বাধ্য হন ওই দুই বিজেপি নেতা। মোদি বলেছিলেন, ‘আমি দেশের মানুষকে আশ্বস্ত করতে চাই যে কোনও দোষীকেই ছাড় দেওয়া হবে না। সম্পূর্ণ ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠিত হবে। আমাদের মেয়েরা অবশ্যই ন্যায়বিচার পাবে।’
অভিযুক্তদের পক্ষে সম্প্রতি র‌্যালি করেছিল দ্য জম্মু বার অ্যাসোসিয়েশনও। অভিযোগপত্র দায়েরে বাধাও দিয়েছিল তারা। পুলিশের তদন্তে সন্তুষ্ট নয় বলে জানিয়েছে জম্মু বার অ্যাসোসিয়েশন। এ ঘটনায় সিবিআই তদন্তের দাবি করে ১২ দিনের ধর্মঘটও পালন করছেন আইনজীবীরা। এদিকে রাজ্যের ল’ ইয়ার’স অ্যাসোসিয়েশন বরাবর একটি নোটিশ ইস্যু করেছে সুপ্রিম কোর্ট। বার কাউন্সিল অব ইন্ডিয়া এর চেয়ারম্যান মনন কুমার মিশরা বলেন, ‘যদি কোনও আইনজীবীকে দোষী পাওয়া যায়, তবে আজীবনের জন্য তার লাইসেন্স বাতিলের অধিকার আমাদের আছে।’

এস এম তৌহিদ রুপালী পর্দার বিখ্যাত প্রযোজক হতে চান
                                  

দেশের এক অন্যতম পুরাতন বিভাগীয় দৃষ্টিনন্দন শিল্প নগরীর নাম খুলনা সিটি । একদিকে বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ সুন্দরবন যার মধ্যে চির হরিৎ । সবুজ গোলবন, কেওয়া, গেওয়া, সুন্দরী, বাঘ, হরিন, বানর আর অবারিত বঙ্গোপসাগর জুড়ে রয়েছে গোটা দক্ষিনাঞ্চলের সাদা সোনা হিসেবে পরিচিত বাগদা, গলদা ।  দেশের রুপালী ইলিশ বিদেশে রপ্তানী সহ খুলনা অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির নগরী । সাহিত্য সংস্কৃতি অঙ্গনে খুলনার জুড়ি মেলা ভার । এদিক থেকে খুলনা কখনও পিছিয়ে ছিল না । নাচে গানে সর্ট ফিল্ম এবং সিনেমা জগতে অনেক খ্যাতিমান অভিনেতারা অনেক নাম কুড়িয়েছেন দেশ - বিদেশে ।
বাংলাদেশের মানুষের মাতৃভাষা বাংলা এবং রাষ্ট্র ভাষাও বাংলা । এদেশের সব কিছুই চলছে বাংলায় । আমরা বাংলাদেশের নাগরিক । এস এম তৌহিদ বর্তমান কর্মস্থান গাজী মেডিকেল কলেজ, কম্পিউটার কাম অডিও ভিজ্যুয়াল টেকনিশিয়ান হিসাবে কর্মরত আছেন । তার ছোট বেলা থেকেই স্বপ্ন ছিলো একজন ইলেক্ট্রিক্যাল ইনঞ্জনিয়ার হবেন  এবং বিদেশে যাবেন। কিন্তু লেখাপড়ার মধ্য দিয়ে হঠাৎ জড়িয়ে পড়েন সাংস্কৃতিক জগতে। প্রথমে চমক নামক সাংস্কৃতিক সংগঠনের মাধ্যমে হাতে খড়ি। সেই থেকে হাটি হাটি পা পা করে স্টেজ প্রোগ্রাম ও বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলে ১৯৯৯ সাল থেকে তাদের সঙ্গে কাজ করেন । এর মধ্যে তিনি জি.এম. মাল্টিভিশনে  আসা যাওয়া করতেন। এই জি.এম. মাল্টিভিশন এর চেয়ারম্যান হলেন খুলনার বিখ্যাত গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অতি পরিচিত মুখ বিশিষ্ট সঙ্গীত সুরকার ।  বিখ্যাত দেশের গান পরিবেশন হিসবে বিটিভি সহ বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়া ব্যাক্তিত্ব  ডা. গাজী মিজানুর রহমান এর পাশাপাশি চমক মিউজিক একাডেমীর সঙ্গে ছিলেন। পরে জনাব এস এম তৌহিদ নিজ উদ্যোগে ২০০৫ সাল থেকে পায়েল নামক একটি সাংস্কৃতিক সংগঠন নিজেই পরিচালনা করেন। প্রধান উপদেষ্টা ডা:গাজী মিজানুর রহমান তিনি সব সময় পায়েল সাংস্কৃতিক সংগঠনকে পৃষ্টপোশকতা ও সহযোগিতা করে আসছেন । এ পর্যন্ত আজ পায়েল সংগঠনের ১৩ বছর অতিক্রান্ত হতে চলেছে।
পায়েল সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন এর ছাএ ছাএী আজ তারা বাংলাদেশ চলচিএে কাজ করছে । তাছাড়া বিভিন্ন নাটক ,বিজ্ঞাপন,সর্ট ফিল্ম ও টেলিফিল্মে এবং সংগঠনের এর ছাত্র ছাত্রী কলকাতায় বিভিন্ন স্থানে আমন্ত্রন পেয়ে অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন করেন । তাছাড়া খুলনা ও কলকাতায় প্রতিযোগীতায় সংগঠনের ছেলে  মেয়েরা বিভিন্ন জায়গায় অংশগ্রহন করেছে। এবং তারা পুরস্কার ও এ্যাওয়ার্ড পেয়েছে । এ পর্যন্ত প্রায় ৬০ জনেরও বেশি ঢাকা ও খুলনায় মিডিয়া অঙ্গনে কাজ করে আসছে ।
পায়েল সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন শুধু নাচ গান করে না । অসহায় গরীব মানুষের পাশে দাড়িয়ে বই খাতা ,শীত বস্ত বিতরন, পরিবেশ রক্ষায় বৃক্ষ রোপন। বিভিন্ন মাননাধিকার সংগঠনের সঙ্গে একযোগে বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করে আসছে। অসুস্থ্য যারা তাদের আর্থিক সহযোগীতা ও বিনামূল্যে চিকিৎসা ওষুধপথ্য ও সেবা দান এবং খুলনার বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডের সাথে পায়েল সমান তালে তাল মিলিয়ে তার জনপ্রিয়তা অক্ষুন্ন রেখে চলেছে । খুলনার অন্যতম শিল্পী নৃত্য গোষ্ঠী পায়েলের প্রতিষ্ঠাতা এস এম তৌহিদ পিরোজপুর জেলায় জন্মগ্রহন করেন । এরপর তিনি তার কর্মস্থলের পাশাপাশি যুক্ত হন একজন সাধারন নৃত্য শিল্পী হিসেবে। এখন তারই নেতৃত্বে তার এই প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের আধুনিক নৃত্যের সব রকমের সহায়তা দিয়ে তাদের প্রশিক্ষিত করে তুলছেন ।
তিনি একাধারে নৃত্য শিল্প, নির্দেশক, অভিনেতা, সর্ট ফিল্ম, টেলিফিল্ম কাহিনীর রচয়িতা এবং পরিচালকের ভূমিকায় অবতীর্ন । শুটিং এর নির্দেশক হিসেবে বৃহত্তর খুলনার বিভিন্ন উপযোগী স্পটে একঝাক প্রশিক্ষিত শিল্পী নাট্যকর্মীকে নিয়ে ছুটে যান সেখানে। তিনি অনেক প্রশিক্ষনে অংশ নিয়ে অভিজ্ঞতা অর্জন করে তার সৃষ্টিশীলতার এক ব্যাতিক্রম সংগঠন পায়েলকে আধুনিকতার ছোয়ায় আরো উপযোগী করতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন । তিনি মুখ অভিনয়ে বিশেষভাবে প্রশিক্ষন ও অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করে প্রতিটি ক্ষেত্রে সৃজনশীল সৃষ্টিশীলতা রুচিশীল মানষিক বিকাশ সাধনে পায়েলকে সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনে ব্যাপকভাবে সমাদৃত করতে এগিয়ে চলেছেন । এ প্রতিষ্ঠানটি গাজী মিজান সোনাডাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন স্থানে গড়ে উঠেছে । এখানে শিক্ষার্থীদের সংস্কৃতি অঙ্গনে ব্যাপক অবদান রাখতে বিভিন্ন প্রশিক্ষন আবৃত্তি কৌতূক ড্যান্স নাটক মিউজিক ভিডিও নির্মানে কাজ করছেন। আলোর যাত্রী সর্ট ফিল্মে হিরোর অভিনয় করেছেন এস এম তৌহিদ । এখানে বাংলাদেশ সরকারের বাল্য বিবাহ ও যৌতুক প্রথার বিরুদ্ধে সমাজের বাস্তবতা তুলে ধরা হয়েছে। বাপজানের বিয়ে হাসির কৌতূক টেলিফিল্মে একদিকে মা মেয়ে অপরদিকে বৃদ্ধ পিতা ও চার পুত্রের বিরুদ্ধে অবস্থানের কারনে ছেলেরা তাদের পিতাকে পুনরায় বিয়ে করার সকল আয়োজন সম্পন্ন করলে সফলতা হিসেবে পূর্বের স্ত্রী ছেলে এবং স্বামীর কাছে ক্ষমা চেয়ে সুন্দর পরিচ্ছন্ন সংসার গড়তে অঙ্গীকারাবদ্ধ হন। এস এম তৌহিদ একজন সদা হাস্যজ্জল মিষ্টভাষী এবং মানুষের কল্যানে বিপদে সব সময় এগিয়ে যান ।
কলকাতায় বিভিন্ন জায়গায় - হলদীয় নন্দীগ্রাম, মধ্যগ্রাম, বারাসাত, ঈশাপুর, বহররামপুর সহ ভারতের বিভিন্ন স্থানে পায়েল সংগঠনটি নাচে গানে দর্শক মাতিয়ে নন্দিত হয়েছেন । এছাড়া রাজধানী ঢাকা সহ দেশের দক্ষিনাঞ্চলে পায়েল তার নিজস্ব স্বকিয়তা প্রদর্শন করে পায়েল এখন শুধু খুলনার মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়। সারাদেশ জুড়ে এবং প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভারতেও এ সংগঠনটি আজ ব্যাপক সমাদৃত। সরকারী বেসরকারী আর্থিক সহযোগীতা ব্যাতিরেকে এ সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা জনাব এস এম তৌহিদ বাপজানের বিয়ে সহ অসংখ্য সর্ট ফিল্ম নির্মান করে বর্তমান প্রজন্মের দর্শকদের মাতিয়ে রেখেছেন। তিনি হতে চান দেশের খ্যাতনামা রুপালী পর্দার অন্যতম প্রযোজক । তিনি কোন যৌথ প্রযোজনায় চলচিত্র নির্মানে অনাগ্রহ প্রকাশ করে বলেন, আমাদের মেধা - মননশীলতা - প্রজ্ঞা ও বুদ্ধিদীপ্ত জ্ঞানলব্ধ বিকাশ ঘটিয়ে এ বাংলায় নিজস্ব শিল্প সাহিত্য সংস্কৃতির মিশ্রনে নতুন নতুন সর্ট ফিল্ম  টেলিফিল্ম এবং সিনেমা উপহার দিতে বদ্ধপরিকর ।

বিশ্বমুক্ত গনমাধ্যম দিবস পালিত
                                  

কিপিং   পাওয়ার   ইন   চেক :   মিডিয়া,   জাস্টিজ   এন্ড   রোল   অব ল’ এই শ্লোগানকে   সামনে   রেখে   বাগেরহাটে   নানা   কর্মসুচির   মধ্য   দিয়ে বিশ্বমুক্ত গনমাধ্যম দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকালে ইয়ুথ জার্নালিস্টস ফোরামের  উদ্যোগে শহরের একটি  বর্নাঢ্য র‌্যালী বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন শেষে প্রেসক্লাবের সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে প্রেসক্লাব মিলনায়তনে  ইয়ুথ জার্নালিষ্টস্ ফোরাম বাংলাদেশ’র (ওয়াইজেএফবি)  বাগেরহাট   জেলা   কমিটির   সভাপতি   আব্দুল   বাকী তালুকদারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাগেরহাট প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য প্রবীন সাংবাদিক অধ্যাপক এবিএম   মোশারর   হুসাইন।   বিশেষ   অতিথি   ছিলেন,   বাগেরহাট প্রেসক্লাবের   সহ-সভাপতি   ও   বাগেরহাট   টিভি   জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি নীহার রঞ্জন সাহা।
ইয়ুথ   জার্নালিস্টস   ফোরামের   বাগেরহাট   জেলা   কমিটির   সাধারণ সম্পাদক   এস  এম   সামছুর   রহমানের   সঞ্চালনায়  এসময়  অন্যান্যেও  মধ্যে বক্তব্য দেন, বাগেরহাট প্রেসক্লাবের আইটি বিষয়ক সম্পাদক হেদায়েত হোসেন লিটন, ওয়াইজেএফবির বাগেরহাট কমিটির সহ-সভাপতি এস এম তাজ উদ্দিন, সহ-সম্পাদক আল-আমীন খান সুমন, নির্বাহী সদস্য এস এস শোহান, আমিরুল ইসলাম বাবু, সোহরাব হোসেন রতন, আব্দুল্লাহ আল  ইমরান,  মামুন আহম্মেদ,  মশিউর রহমান মাসুম,  রাকিবুল  ইসলাম রাজ, সাংবাদিক শহিদুল ইসলাম, আল- মামুন প্রমুখ।
আলেচনা  সভায়   পেশাগত   দায়িত্ব   পালনকালে   ক্ষতিগ্রস্ত   ও   জীবনদানকারী সাংবাদিকদের স্মরণ ও তাদের স্মৃতির প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয় এবং     সাংবাদিকতার   স্বাধীনতা   ও   মুক্ত   গণমাধ্যম   প্রতিষ্ঠার   মৌলিক নীতিমালা   অনুসরণ,   বিশ্বব্যাপী   গণমাধ্যমের   স্বাধীনতার   মূল্যায়ন, স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ প্রতিহত করার আহবান জানানো হয়।

২৮ মে সম্পাদকের পিতার ২য় মৃত্যুবার্ষিকী
                                  

মানবাধিকার খবর প্রতিবেদন ঃ  আগামী ২৮ মে ২০১৮ইং মানবাধিকার খবর সম্পাদক ও প্রকাশক রোটারিয়ান মোঃ রিয়াজ উদ্দিন এর পিতা আব্দুল হামিদ শেখের ২য় মৃত্যুবার্ষিকী। এ উপলক্ষে বাগেরহাটের কচুয়া থানার সহবৎকাঠী মরহুমের গ্রামের নিজ বাড়িতে এক মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। তিনি ২০১৬ সালের এ দিনে ৯৭ বছর বয়সে বার্ধক্যজনিত কারণে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি স্ত্রী, দুই ছেলে, ৪ কন্যাসহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজন ও গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। মরহুমে বিদেহী আত্মার প্রতি সকলের কাছে দোয়া কামনা করা হয়েছে।

উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি রামগঞ্জ পৌর বাস টার্মিনালে
                                  

দীর্ঘ দিন সংস্কারের অভাবে জরার্জীন হয়ে পড়েছে রামগঞ্জ পৌর বাস টার্মিনাল। টার্মিনালের ভিতরের রাস্তার বেহাল দশা ও ড্রেনেস ব্যবস্থা না থাকায় কাঁদা ও পানি জমে  ভোগান্তী পোহাতে হচ্ছে বাস শ্রমিক ও যাত্রীদের। অপরদিকে যাত্রী ছাউনীটি দখল করে দোকান তৈরী করায়, পাবলিক টয়লেটটি ব্যবহারের অযোগ্য হওয়ায়, ঘাট, লাইটিং ও খাবার পানির সু-ব্যবস্থা না থাকায় প্রতিনিয়ত বিড়ম্বনার স্বীকার হচ্ছে সাধারন যাত্রীরা।
টার্মিনাল ভবনটির দরজা, জানালা ভেঙ্গেচুরে, ছাদ ও ওয়াল খসে পড়ে ঝুকিপূর্ন অবস্থায়  রয়েছে। রামগঞ্জ পৌর বাস টার্মিনালটি ২০০৬ সালে ১একক ৫৬ শতাংশ জমির উপর স্থাপিত হয় । টার্মিনালটি স্থাপনের পর থেকে এখনও উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি।
এ টার্মিনাল থেকে প্রতিদিন ঢাকা, চট্রগ্রাম, চাঁদপুর, লক্ষ্মীপুর ও নোয়াখালীসহ  বিভিন্ন রুটে প্রায় ৩ শতাধিক বাস চলাচল করে।
টার্মিনাল লীজ, কাউন্টার ও দোকান ভাড়া বাবত প্রতিবছর পৌরসভা ৮ লক্ষাধিক টাকা রাজস্ব আদায় করে থাকে। দিন দিন যানবাহনের সংখ্যা বেড়ে গেলেও বাড়ানো হয়নি টার্মিনালের জাগয়া ও অবকাঠামোর উন্নয়ন। বাসটার্মিনালে আসা সমেষপুর গ্রামের ফারুক পাটোয়ারী জানান,একটি প্রথম শ্রেণীর পৌরসভার বাসটার্মিনাল এটি তা দেখে বুঝার উপায় নেই। যাত্রীদের ভোগান্তির অন্ত নেই। দ্রুত টার্মিনাল ভবনটি পরিত্যাক্ত ঘোষনা করে নতুন ভবন নির্মান করা প্রয়োজন, নতুবা যে কোন সময় দূর্ঘটনার আশংকা রয়েছে।
রামগঞ্জ আন্তঃজেলা বাস মালিক সমিতির সভাপতি মিজানুর রহমান জানান, ২০০৬ সালে তৎকালিন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী জিয়াউল হক জিয়া পুকুর ভরাট করে টার্মিনালটি নির্মান ও উদ্ভোধন করার পর থেকে অদ্যবধি কোন সংস্কারের কাজ হয়নি। পৌর সভা প্রতিবছর টার্মিনাল লীজ, কাউন্টার ও দোকান ভাড়া বাবত ৮ লক্ষাধিক টাকা আদায় করে।
অথচয় টার্মিনালে টয়লেটটি ব্যবহারের অযোগ্য, ঘাট, লাইটিং, ড্রেনেজ ব্যবস্থা নেই। আমরা মাঝে মাঝে ব্যক্তিগত উদ্যোগে মালিক ও শ্রমিকের কাছ থেকে কিছু টাকা তুলে সংস্কারের কাজ করে থাকি।
টার্মিনাল বাস মালিক সমিতির সভাপতি ও পৌর কাউন্সিলর মামুনুর রশিদ আখন্দ জানান, যাত্রী ছাউনিটি ২০১০ সালে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মনির হোসেন চৌধুরী জেলা পরিষদের মাধ্যমে পরিত্যাক্ত ঘোষনা করিয়ে, নিজের নামে লীজ নিয়ে নেয়, এখনও তাঁর নামে লীজ রয়েছে। টার্মিনালের পক্ষ থেকে পৌর সভার আগামী সভায় সমস্যা গুলো উপস্থাপন করে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার জোরালো দাবী জানানো হবে।
বাসটার্মিনালটির জরার্জীন অবস্থার কথা স্বীকার করে রামগঞ্জ পৌর মেয়র আবুল খায়ের পাটোয়ারী জানান, টার্মিনালের টয়লেটটিসহ সকল সমস্যা দ্রুত সমাধানের ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

রামগড়-সাবরুম স্থল বন্দর পর্যটন শিল্পে ভূমিকা রাখবে : শাহজাহান খান
                                  

নৌ পরিবহন মন্ত্রী মো. শাহজাহান খান শনিবার ২১, এপ্রিল খাগড়াছড়ির রামগড় সফরের মধ্য দিয়ে বহুপ্রতিক্ষিত রামগড়-সাবরুম স্থল বন্দর স্থাপনের কাজ আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল। রামগড়ের মহামুনি এলাকায় নির্মীয়মাণ স্থল বন্দর কাজের অগ্রগতি সরেজমিন দেখতেই ওই দিন তিনি মূলত রামগড় আসেন। উভয় দেশের মধ্যে সংযোগ স্থাপনে অতি গুরুত্বপূর্ণ ফেনী নদীর রামগড়-সাবরুম অংশে বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী সেতু-১ এর নির্মাণ স্থল পরিদর্শন শেষে কাজের গতি আরও তরাম্বিত করতে সংশ্লিষ্টদের দিক নির্দেশনা দেওয়া হয় । এ সময়  উপস্থিত
সাংবাদিকদের মো. শাহজাহান খান জানান, বন্দর সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন স্থাপনা  নির্মাণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১০০ কোটি টাকা বরাদ্ধ দিয়েছেন।
এসব স্থাপনা ১০ একর জমির ওপর নির্মিত হবে। সরকারের বিভিন্ন দাপ্তরিক কার্যালয় স্থাপনের অগ্রগতি দেখতে জুন-জুলাইয়ে আরও একবার রামগড় আসার কথা জানান তিনি। অবশ্য ভারতীয় কর্তৃপক্ষ গত ১০ নভেম্বর তাঁদের অংশে কাজ  শুরু করে দিয়েছেন। পরে মন্ত্রী রামগড়ে এক জনসভায় বলেন, ফেনী নদীর ওপর প্রস্তাবিত সেতু ভারতের ত্রিপুরা ও বাংলাদেশের বানিজ্যিক রাজধানী চট্রগ্রামের মধ্যে সরাসরি যোগাযোগ স্থাপিত হবে। ফলে দুই দেশের মধ্যে ব্যবসায়,
বানিজ্য পর্যটন এর প্রসার এবং মানুষে মানুষে সম্পর্কোন্নয়নে গোটা অঞ্চলের উপকার হবে। অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি আসবে, কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে সর্বোপরি গোটা এলাকায় প্রাণ চাঞ্চল্য ফিরে আসবে। পার্বত্য চট্রগ্রামে আরও দুইটি স্থল বন্দর স্থাপনে কথা মন্ত্রী জনসভায় উল্লেখ করেন।
রামগড় উপজেলা আওয়ামীলিগের আহ্বায়ক  মো. শাহ আলমের সভাপতিত্বে জনসভায় আর বক্তব্য রাখেন খাগড়াছড়ির সাংসদ ও টাস্ক ফোর্স সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, জেলা পরিষদ সদস্য মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু ,উপজেলা আওয়ামীলিগ নেতা কাজী আলমগীর, জেলা পরিষদ সদস্য জুয়েল ত্রিপুরা,প্রমুখ। এ দিকে, বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী সেতু নির্মাণ কাজ শুরুতে এ অঞ্চলের আশা জাগানিয়া মানুষগুলো অর্থনৈতিক মুক্তির প্রত্যাশা করছেন। সমাজের খেঁটে খাওয়া, উচ্চ ও মধ্যবিত্ত সব শ্রেণি-পেশার মানুষের আশা রামগড় স্থল বন্দর এই অঞ্চলের অধিবাসীদের অর্থনৈতিক মুক্তির পাশাপাশি কর্মচাঞ্চল্য সৃষ্টিতে ভূমিকা রাখবে এবং সফল কানেক্টিভিটিতে বৈদেশিক বানিজ্যের মাধ্যমে দেশ এগুবে সমৃদ্ধির পথে। দেশের অন্যান্য অঞ্চলের তুলনায় পাহাড়ে কর্মসংস্থানের  সুযোগ কম। বড় ছোট কোন ধরনেরই মিল ফ্যাক্টরি কল কারখানা না থাকায়  বিপুল সংখ্যক মানুষ বেকার জীবন কাটাচ্ছেন। এদিকে, স্থল বন্দর নিমার্ণ কাজ শুরু করায় নতুন আশায় উজ্জীবিত এ সব প্রান্তিক জনগোষ্ঠীসহ বিনিয়োগকারী-ব্যবসায়ীরা।
বিশ্লেষকদের মতে,বিপুল সংখ্যক  মানব সম্পদ কাজে লাগবে অযুত সম্ভাবনার এই কর্মযজ্ঞে। ওই সময় চাকরি-বাকরি,ব্যবসা-বানিজ্যে সবার সামনেই খুলে যাবে নতুন এক স্বর্ণালীসময়,যেন বহুবছরের প্রত্যাশিত চাওয়া।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, চট্রগ্রাম সমুদ্র বন্দরকে ব্যবহার করে ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় ত্রিপুরা
রাজ্যসহ মেঘালয়, আসাম, মনিপুর মিজোরাম, নাগাল্যান্ড এবং অরুনাচল এই সাত রাজ্যের (সেভেন সিস্টার্স) সঙ্গে ব্যবসা বানিজ্য সম্প্রসারণ করতে বাংলাদেশ ও ভারত সরকার রামগড়- সাবরুম স্থল বন্দর স্থাপনে উদ্যোগী হয়। ইতিমধ্যে স্থলবন্দর কে ঘিরে বন্দর টার্মিনাল, গুদামঘর সহ অন্যান্য অবকাঠামো নিমার্ণে ভূমি অধিগ্রহণ কাজও চুড়ান্ত করেছে দুই দেশ। সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের গত জানুয়ারী মাসে রামগড় সফরের সময় সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, রামগড় স্থল বন্দরের সঙ্গে চট্রগ্রাম বন্দরের সংযোগ সড়ক (রামগড় - বারৈয়ারহাট পর্যন্ত ৩৮ কিলোমিটার)উন্নয়নের কাজ বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে জাপানি উন্নয়ন সংস্থা জাইকা বাস্তবায়ন করবে। এ জন্য খরচ হবে ৩ হাজার কোটি টাকা এবং সড়কটি চার লেনে উন্নিত হবে। অন্যদিকে, ৪১২ মিটার দৈর্ঘ্য ও ১৪ দশমিক আট মিটার প্রস্ত সংযোগ সেতুটির নির্মাণ ভারত করবে। মূল সেতুর দৈর্ঘ্য হবে ১৫০ মিটার।
খরচ হবে ১১০ কোটি রুপী। নিমার্ণ সময় ধরা হয়েছে দুইবছর পাঁচমাস। বিশিষ্ট উপজাতি নেতা মংপ্রু চৌধুরী ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল কাদের বলেন, সম্প্রতি ভারত-বাংলাদেশ উভয় পক্ষ ত্বরিত গতিতে স্থলবন্দর বাস্তবায়নের কাজ শুরু করায় ব্যবসায়ীসহ সকল মহল আশার আলো দেখছেন। সব মিলিয়ে রামগড় স্থল বন্দর পূর্নাঙ্গ ভাবে চালু হলে বিশ্বায়নের এই যুগে  বাংলাদেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখার পাশাপাশি বিপুল জনগোষ্ঠীর আর্থসামাজিক অবস্থার উন্নয়নে যে, বিশাল ভূমিকা রাখবে নিশ্চিত ভাবেই  তা বলা যায়। আর যোগাযোগের ক্ষেত্রে সূচিত হবে এক নতুন দিগন্তের। আঞ্চলিক গন্ডি ছাপিয়ে এ যেন বিশ্বব্যাপি সেতুবন্ধনের এক পূর্বাভাস।

ঘুষ দুর্নীতিমুক্ত ভূমি ইউনিয়ন অফিস হতে পারে দেশের আদর্শ মডেল
                                  

ছাত্রনেতা নুরুল আজিম রনির বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলার সত্য উন্মোচন প্রেস বিজ্ঞপ্তি:  জনপ্রিয়তা   ও   বীরত্বের   অগ্নিশিখা   সাধারণ   সম্পাদক, চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগ নুরুল আজিম রনির অভাব পূরন হওয়ার নয় বলে মনে করছেন নগর ছাত্রলীগের নেতারা। কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের কর্মীরা সঠিক নেতৃত্বহীনতায়   ভুগছেন।   গতকাল   এক   সাক্ষাতকারে   এমনটিই   বলেছেন   নগর ছাত্রলীগের উপ-ক্রীড়া সম্পাদক কাজী মাহমুদুল হাসান রনি, তিনি বলেন, সম্প্রতি যে   কোচিং   সেন্টার   নিয়ে   যে   চাঁদাবাজির   মামলা   দায়ের   করা   হয়েছিল,   তা সম্পূর্ণ   মিথ্যা   ও   বানোয়াট।  কোচিং   এর   পরিচালক   জৈনক   রাশেদ   মিয়া বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কোচিং এ  ছাত্র/ছাত্রী   ভর্তি করানোর  জন্য   আমাকে প্রায় নিয়মিত   ফোন   দিত   সাথে   সাথে   বলতো,   এ   কোচিং   এর   অর্ধেক   অংশীদারতো আপনাদেরই নুরুল আজিম রনি। এরপর থেকে আমি নিজেই উৎসাহিত হয়ে কোচিং এ বেশ কিছু শিক্ষার্থী ভর্তি করাই। রাশেদ সাহেব আমাকে আরো বলেন, এর একটি শাখা আগ্রাবাদেও খোলার জন্য এবং বেশ কিছু টাকাও চায় আমার কাছে এই মর্মে যে, সে আমাকে উক্ত কোচিং শাখাটির শেয়ার দিবেন। বিষয়টি আমরা খতিয়ে দেখলে জানা যায় যে,  ঐ একই জালে ফাঁসানো  হয়েছে এই চট্টলার জনপ্রিয়  ছাত্রনেতা চট্টগ্রাম   মহানগর   ছাত্রলীগের সাধারণ  সম্পাদক   নুরুল   আজিম  রনিকে। তিনি শিক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয়  কোচিংকে আরো উন্নত করার লক্ষ্যে রাশেদ সাহেবের কথার উপর ভিত্তি করে যে, উনি উক্ত কোচিং সেন্টারের অর্ধেক অংশীদার দেবেন মর্মেও বিষয়টিতে সম্মতি প্রদান করেন। জানা যায় যে, তিনি পরিবার ও আত্মীয় থেকে ঋনে টাকা নিয়ে ৮ থেকে ১০ লক্ষাধিক টাকা দেন এবং কোচিং এর অর্ধেক অংশীদার হন। পরবর্তীতে হিসাব চাইতে গেলে তিনি হিসাব দিতে চাইতেন না বিষয়টি এদিক   ওদিক   করে   ঘুরিয়ে   দিতেন।   এক   পর্যায়ে   বাৎসরিক   শেষ   পর্বের   হিসাব চাইতেই তিনি রনি’র বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি’র অভিযোগ করে মামলা দায়ের করেন নগরীর পাঁচলাইশ থানায়। জনপ্রিয় এই ছাত্রনেতাকে কেন, কে বা কাদের ইশারায় এই ছাত্রনেতাকে   এভাবে   ফাঁসানো   হয়েছে   এটিই   এখন   চট্টগ্রামের   তরুণ   প্রজন্ম, চট্টলাবাসী   ও   মহানগর   ছাত্রলীগ   নেতা   ও   কর্মীদের   মনে   প্রশ্নবিদ্ধ।   তারা   বলেন, অতীতে ছাত্র/ছাত্রীদের পক্ষে আন্দোলনে রনির ভূমিকা ছিল দর্শনীয়। তারা আরো বলেন, কোন মিথ্যা, সাজানো, বানোয়াট রচনা লিখে শেষ করা যাবেনা রনির রাজনীতির অধ্যায়। অতীতে থেমে ছিলনা, ভবিষ্যতেও থামানো যাবেনা বলে মন্তব্য করেছেন।


   Page 1 of 8
     সারাদেশ
জাতীয় মানবাধিকার কমিশন চেয়ারম্যানের কক্সবাজার কারাগার পরিদর্শন
.............................................................................................
নাটোরের সিংড়ায় শীতবস্ত্র বিতরণ
.............................................................................................
রংপুরে অ্যাডভোকেট রথীশ হত্যার রায় : স্ত্রী স্নিগ্ধার মৃত্যুদন্ড
.............................................................................................
সম্পাদকের পিতা আবদুল হামিদের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী পালিত
.............................................................................................
বাগেরহাটে ভূমিদস্যুদের গ্রাসে তিন কোটি টাকার সরকারী সম্পত্তি
.............................................................................................
আটোয়ারীতে সিআরডি কর্তৃক খাদ্য ও কাপড় বিতরণ
.............................................................................................
দৌলতপুর বাঘুটিয়া ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপর্কমের অভিযোগ
.............................................................................................
আপনি জানেন কি?
.............................................................................................
কার্টুন
.............................................................................................
আসিফার আইনজীবীকে ধর্ষণ ও খুনের হুমকি
.............................................................................................
এস এম তৌহিদ রুপালী পর্দার বিখ্যাত প্রযোজক হতে চান
.............................................................................................
বিশ্বমুক্ত গনমাধ্যম দিবস পালিত
.............................................................................................
২৮ মে সম্পাদকের পিতার ২য় মৃত্যুবার্ষিকী
.............................................................................................
উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি রামগঞ্জ পৌর বাস টার্মিনালে
.............................................................................................
রামগড়-সাবরুম স্থল বন্দর পর্যটন শিল্পে ভূমিকা রাখবে : শাহজাহান খান
.............................................................................................
ঘুষ দুর্নীতিমুক্ত ভূমি ইউনিয়ন অফিস হতে পারে দেশের আদর্শ মডেল
.............................................................................................
যুবলীগ নেতা মনিরুল হত্যা মামলার বিচার শুরু
.............................................................................................
ধনবাড়ীতে পালাক্রমে ধর্ষণ ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী অন্তসত্ত্বা
.............................................................................................
কক্সবাজারে অনুমোদনহীন অপরিকল্পিত বহুতল ভবন ভাঙতে শুরু করেছে
.............................................................................................
বাংলা নববর্ষ উদ্ভবের ইতিহাস-কথা
.............................................................................................
স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ইসলামী ব্যাংকের আলোচনা ও দোয়া
.............................................................................................
গভীর শ্রদ্ধায় পালিত হলো জাতির শ্রেষ্ঠ অর্জন মহান স্বাধীনতা দিবস
.............................................................................................
ব্যবসায়ীদের উদ্যোগে ব্রীজ ও সড়কের নির্মান কাজ শুরু
.............................................................................................
বই উপহার দিচ্ছেন প্রথম আলো’র প্রবীন সাংবাদিক
.............................................................................................
নেয়ামুল হক শাহীনের ইন্তেকাল
.............................................................................................
ধেয়ে আসছে শৈত্যপ্রবাহ অসহায় শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ান
.............................................................................................
আধুনিক প্রযুক্তি শীর্ষক কৃষক প্রশিক্ষন ও বীজ বিতরন
.............................................................................................
মানবাধিকার খবর ও প্রাসঙ্গিক কিছু কথা
.............................................................................................
মাতৃহীন শিশু নুসরাত বাঁচতে চায়
.............................................................................................
এলাকার উন্নয়নে কাজ করতে চায় অধ্যাপক ডা: রফিকুল কবির লাবু॥
.............................................................................................
প্রমত্তা তালতলা চাঁদকাঠী গাওখালী নদী দেড় লক্ষাধিক মানুষ বন্দি
.............................................................................................
শ্রীপুরে লেভেল ক্রসিংয়ে জনতার ঝুঁকিপূর্ণ পাড়াপার
.............................................................................................
বর উধাও, বিয়ের পিড়িতে বড় ভাই
.............................................................................................
নারী উন্নয়ন ফোরামের শিক্ষা উপকরন বিতরণ
.............................................................................................
এমপি‘র রোষানলে অর্ধশতাধিক সংখ্যালঘু পরিবার
.............................................................................................
কচুয়ায় দুর্বৃত্তদের হামলা আহত ৩, বসতঘর ভাংচুর, মালামাল লুট
.............................................................................................
নিখোঁজ পুত্রের খোজে দ্বারেদ্বারে ঘুরছে রাশেদ
.............................................................................................
বাগেরহাটে ভন্ডের খপ্পরে সর্বশান্ত দিনমজুর পরিবার
.............................................................................................
বেকার শ্রমজীবীর মাঝে সুদমুক্ত ঋণ বিতরণ
.............................................................................................
র‌্যাবের সাথে বন্দুক যুদ্ধে লিটন বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড নিহত
.............................................................................................
ডাক্তারের হাতে মুক্তিযোদ্ধা ও তাঁর স্ত্রী লাঞ্চিত
.............................................................................................
চাইল্ড পার্লামেন্টের ১৪তম অধিবেশন অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
পিরোজপুর মাল্টার সাম্রাজ্য হিসেবে খ্যাতি অর্জন
.............................................................................................
কিশোরীর রস্যজনক আত্মহত্যা
.............................................................................................
কিশোর বাতায়ন এর অবহিতকরন সভা
.............................................................................................
রাড়ীপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন
.............................................................................................
যোগিপোল ইউনিয়ন যুবদলের প্রস্তুতি সভা
.............................................................................................
আটোয়ারী উপজেলা প্রেস ক্লাবের কমিটি গঠন
.............................................................................................
মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত জাহিদ শেখ
.............................................................................................
প্রতিবন্দ্বী বৃদ্ধকে হত্যার দায়ে একজনের মৃত্যুদন্ড
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

Editor & Publisher: Rtn. Md Reaz Uddin
Corporate Office
53,Modern mansion(8th floor),Motijheel C/A, Dhaka
E-mail:manabadhikarkhabar34@gmail.com,manabadhikarkhabar34@yahoo.com,
Tel:+88-02-9585139
Mobile: +8801978882223 Fax: +88-02-9585140
    2015 @ All Right Reserved By manabadhikarkhabar.com    সম্পাদকীয়    Adviser List

Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]