| বাংলার জন্য ক্লিক করুন

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   সারাদেশ -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
অর্থাভাবে দুই কন্যা শিশুকে হত্যা করেছে বাবা!

                       নিহত দুই কন্যা নুসরাত জাহান তাইন (১০) ও তানিশা তাইয়েবা (৪)

নরসিংদী সংবাদ দাতা :
২৫ মে নরসিংদী শহরের কাউরিয়াপাড়া নতুন লঞ্চঘাটের টয়লেট থেকে দুই কন্যা শিশুর লাশ পাওয়া গিয়েছে। দুই শিশুর নাম নুসরাত জাহান তাইন (১০) ও তানিশা তাইয়েবা (৪)। এই দুই কন্যা শিশুকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করার কথা স্বীকার করেছে তাদের বাবা শফিকুল ইসলাম। এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন নরসিংদীর পুলিশ সুপার মিরাজ উদ্দিন আহমেদ। ২৫ মে দুপুর ১২টার দিকে পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এই তথ্য জানান তিনি।
ব্র্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার বলেন, নিহত দুই শিশুর বাবা শফিকুল ইসলাম ও তার পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, শফিকুল ইসলাম পূর্ব থেকেই মানসিকভাবে অসুস্থ ছিলো। ২৫ মে শনিবার সে তার দুই মেয়েকে মনোহরদী থেকে শিবপুরে ডাক্তার দেখাতে নিয়ে আসে। সেখানে ডাক্তার না থাকায় নরসিংদী সদরে ঘুরতে আসে মেয়েদের নিয়ে। পরে বড় মেয়ের আবদার অনুযায়ী নরসিংদী কাউরিয়াপাড়া নতুন লঞ্চ ঘাট দেখতে আসে তারা।
পুলিশ সুপার আরো বলেন, তার কথাবার্তায় নানা রকমের অসঙ্গতি দেখেছি। সে জানিয়েছে পারিবারিক দারিদ্র্য, মেয়েদের লেখাপড়ার খরচ না দিতে পারা, আবদার অনুযায়ী মেয়েদের নতুন জামা দিতে না পারা সবকিছু মিলিয়ে মানসিক হিতাহিত জ্ঞান হারিয়ে ফেলে সে। প্রথমে ছোট মেয়েকে লঞ্চ ঘাটের একটি টয়লেটে নিয়ে গিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। পরে বড় মেয়েকে একই টয়লেটে নিয়ে গিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে ফেলে রেখে চলে যায়। পরে ঘটনাস্থলে এসে তাদের নিজের সন্তান দাবি করলেও তার কথাবার্তায় সন্দেহ হলে তাকে আটক করা হয়।
২৬ মে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোন মামলা হয়নি। নিহতদের মৃতদেহ ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের হাতে তুলে দেয়া হবে।

অর্থাভাবে দুই কন্যা শিশুকে হত্যা করেছে বাবা!
                                  

                       নিহত দুই কন্যা নুসরাত জাহান তাইন (১০) ও তানিশা তাইয়েবা (৪)

নরসিংদী সংবাদ দাতা :
২৫ মে নরসিংদী শহরের কাউরিয়াপাড়া নতুন লঞ্চঘাটের টয়লেট থেকে দুই কন্যা শিশুর লাশ পাওয়া গিয়েছে। দুই শিশুর নাম নুসরাত জাহান তাইন (১০) ও তানিশা তাইয়েবা (৪)। এই দুই কন্যা শিশুকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করার কথা স্বীকার করেছে তাদের বাবা শফিকুল ইসলাম। এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন নরসিংদীর পুলিশ সুপার মিরাজ উদ্দিন আহমেদ। ২৫ মে দুপুর ১২টার দিকে পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এই তথ্য জানান তিনি।
ব্র্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার বলেন, নিহত দুই শিশুর বাবা শফিকুল ইসলাম ও তার পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, শফিকুল ইসলাম পূর্ব থেকেই মানসিকভাবে অসুস্থ ছিলো। ২৫ মে শনিবার সে তার দুই মেয়েকে মনোহরদী থেকে শিবপুরে ডাক্তার দেখাতে নিয়ে আসে। সেখানে ডাক্তার না থাকায় নরসিংদী সদরে ঘুরতে আসে মেয়েদের নিয়ে। পরে বড় মেয়ের আবদার অনুযায়ী নরসিংদী কাউরিয়াপাড়া নতুন লঞ্চ ঘাট দেখতে আসে তারা।
পুলিশ সুপার আরো বলেন, তার কথাবার্তায় নানা রকমের অসঙ্গতি দেখেছি। সে জানিয়েছে পারিবারিক দারিদ্র্য, মেয়েদের লেখাপড়ার খরচ না দিতে পারা, আবদার অনুযায়ী মেয়েদের নতুন জামা দিতে না পারা সবকিছু মিলিয়ে মানসিক হিতাহিত জ্ঞান হারিয়ে ফেলে সে। প্রথমে ছোট মেয়েকে লঞ্চ ঘাটের একটি টয়লেটে নিয়ে গিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। পরে বড় মেয়েকে একই টয়লেটে নিয়ে গিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে ফেলে রেখে চলে যায়। পরে ঘটনাস্থলে এসে তাদের নিজের সন্তান দাবি করলেও তার কথাবার্তায় সন্দেহ হলে তাকে আটক করা হয়।
২৬ মে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোন মামলা হয়নি। নিহতদের মৃতদেহ ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের হাতে তুলে দেয়া হবে।

কক্সবাজারের পোকখালীতে গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু ! ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার।
                                  

মোঃ জানে আলম সাকী, কক্সবাজার।:কক্সবাজার সদর উপজেলার পোকখালীতে গলায় ফাঁস লাগিয়ে তুফা বেগম (২৫) নামে এক গৃহবধুর গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছেন পুলিশ।


সোমবার (২০ মে) বেলা দুইটার দিকে পোকখালী ইউনিয়নের (১ নং ওয়ার্ড) পূর্ব ইছাখালী এলাকার নিজ বাড়ীতে ঘটনাটি ঘটে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে রাত সাড়ে ৮টার দিকে মরদেহটি উদ্ধার করে। নিহত গৃহ বধু ওই এলাকার রেজাউল করিম এর স্ত্রী। তবে, কি কারণে আত্মহত্যা করেছে তা রহস্যজনক মনে করছে স্থানীয়রা। নিহত তুফা বেগমের শ্বশুর মোঃ নজির আহমেদ বলেন, নামাজ পড়ার উদ্দেশ্য রুমে গিয়ে নিজে নিজের গলায় ফাঁস লাগিয়েছে তুফা।


তবে এলাকাবাসীর দাবি, হত্যা করার পর তাকে বাড়ির তীরের সাথে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। ননদ রাশেদা আক্তার (১৫) ও শ্বাশুড়ী ছমুদা বেগম (৫৫)কে জিজ্ঞাসবাদের জন্য পুলিশ তদন্তকেন্দ্রে নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। ঈদগাঁও তদন্ত কেন্দ্রের ইনর্চাজ মোঃ আসাদুজ্জামান ঘটনা সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশ ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার সঠিক অনুসন্ধান চলছে। ময়না তদন্তের পরে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে এলাকাবাসী দোষী ব্যাক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন প্রশাসনের কাছে।

শ্রীপুরে প্রস্তাবিত ‘জননেত্রী শেখ হাসিনা কলেজ’ স্থাপনের উদ্যোগ শিক্ষক,সূধীজন ও সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভা
                                  

আতাউর রহমান সোহেল, গাজীপুর প্রতিনিধি: গাজীপুরের শ্রীপুরে ফকির পরিবারের স্ব উদ্যেগে জ্ঞাণের আলো ছড়িয়ে দেওয়ার উদ্দেশ্যে প্রকৃত মেধাবী খোঁজে বের করার প্রত্যয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার নামে একটি কলেজ করার প্রস্তাব করেন মরহুম জাহেদ আলী ফকিরের নাতী লিয়াকত ফকির । ২১মে মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় মাওনা চৌরাস্তার উড়াল সেতুর উত্তর-পশ্চিম পাশে রাজ্জাক প্লাজায় শিক্ষক, সূধীজন ও সাংবাদিকদের মাঝে এক মতবিনিময় সভা উনুষ্ঠিত হয়েছে । উক্ত মতবিনিময় সভায় শ্রীপুর বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ফনী ভূষণ সাহার সভাপতিত্বে আলহাজ্ব মোছলে উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজাহার তালুকদারের সঞ্চালনায় উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন শ্রীপুর উপজেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ, সূধীজন ও শ্রীপুরে কর্মরত সকল সংবাদকমীবৃন্দ ।
উক্ত সভায় কলেজটির নাম ‘জননেত্রী শেখ হাসিনা কলেজ’ হিসেবে প্রস্তাব উত্থাপিত হয়।

সভায় স্থানীয় বিদ্যোৎসাহী আলহাজ্ব আব্দুর রাজ্জাক ফকির বলেন, কলেজটি উপজেলার মুলাইদ গ্রামের আমতলি এলাকায় প্রতিষ্ঠা করা হবে। তিনি নিজে এর প্রতিষ্ঠাতা। সব ঠিকঠাক থাকলে আগামী (২০২০-২০২১) সেশন থেকে শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্রম শুরু করতে সক্ষম হবেন। গাজীপুর-৩ আসনের সাংসদ মো. ইকবাল হোসেন সবুজ কলেজের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য বলেও জানান তিনি।

আলহাজ্ব মোসলেহ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজাহার তালুকদারের সঞ্চালনায় ও শ্রীপুর বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ফণী ভূষণ সাহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপজেলার সকল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বক্তব্য রাখেন। মতবিনিময় সভাশেষে আমন্ত্রিত সকল অতিথিদের ইফতার করানো হয়।

 

শ্রীপুরে তথ্য অধিকার আইন বিষয়ক জনঅবহিতকরন সভা অনুষ্ঠিত
                                  

আতাউর রহমান সোহেল (গাজীপুর ):    গাজীপুরের শ্রীপুরে তথ্য অধিকার আইন ২০০৯ বিষয়ক জনঅবহিতকরন সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা পরিষদের বিজয় সভা কক্ষে ২১শে মে মঙ্গলবার সকাল ১০:০০টায় এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।সভায় সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাতেমা তুজ জোহরার সভাপতিত্বে, প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধান তথ্য কমিশনারের একান্ত সচিব (উপ সচিব) মোহাম্মদ গোলাম কবির। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মইনুল হক খান,কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ এ এস এম মূয়ীদুল হাসান, শিক্ষা কর্মকর্তা মোহাম্মদ কামরুল হাসান,পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জিনাত শারমিন,মাওনা হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) দেলোয়ার হোসেন সহ তথ্য অধিকার আইন ২০০৯ বিষয়ক জনঅবহিতকরন সভায় অংশগ্রহন করেন, বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারী,সাংবাদিক,স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধি বৃন্দ।

মোরেলগঞ্জে খড়ের গাদায় অগ্নিসংযোগ মামলার ভয়ে এলাকা পুরুষ শূন্য
                                  

এস এম সামছুর রহমান, বাগেরহাট :
বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে খড়ের গাদায় অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। আর এঘটনাকে কেন্দ্র করে মামলার ভয়ে এলাকা পুরুষশূন্য হয়ে পড়েছে। ফলে আতংকে দিন কাটাচ্ছে এলাকার নারী ও শিশুরাও। ১৯ এপ্রিল দুপুরে মোড়েলগঞ্জ উপজেলার পঞ্চকরণ ইউনিয়নের উত্তর কুমারিয়া জোলা গ্রামে এ অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। ওই গ্রামের শুনিল কবিরাজের ছেলে সুজন কবিরাজ নিজে তার খড়ের গাদায় আগুন দিয়ে ও মিথ্যা হামলার নাটক সাজিয়ে প্রতিপক্ষদের ফাঁসানোর চেষ্টা করছেন বলে অভিযোগ এলাকাবাসির। এঘটনার প্রতিবাদে পরািদন এলাকাবাসি উত্তর কুমারিয়া জোলার রাস্তায় একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে।
এলাকাবাসি জানান, স্থানীয় দিনেশ বারুইয়ের একটি জমি সুজন কবিরাজ অবৈধ ভাবে দখল কওে রেখেছে। ইউনিয়ন পরিষদ ও স্থানীয়রা একাধিকবার শালিশ বৈঠক করে ওই জমি ছেড়ে দেয়ার জন্য আনুরোধ জানিয়েছে। এতে সে এলাকাবাসির উপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। শুক্রবার ওই জমির মালিক কাজের লোক নিয়ে জমিতে গেলে সুজনের স্ত্রী তাদের উপর চড়াও হয়। পরে প্রকাস্যে দিবালোকে সবার সামনে সে তার খড়ের গাদায় অগ্নিসংযোগ করে এবং নিজের স্ত্রীর হাতের শাখা ভেঙ্গে ফেলে। শুক্রবার রাতে মিথ্যা মামলায় হয়রানি হওয়ার ভয়ে এলাকার পুরুষেরা আত্মগোপনে চলে যায়।
স্থানীয় জনশক্তি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষক বিকাশ চন্দ্র মিস্ত্রি ও পাঁচগাও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক পিনাক মুখার্জী জানান, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে সুজন কবিরাজ নিজের খড়ের গাদায় অগ্নিসংযোগ করে এলাকাবাসিকে হয়রানি করার হুমকী দিয়েছে। তাই শুক্রবাররাতে এলাকার পুরুষেরা বাড়িতে না ঘুমিয়ে পালিয়ে ছিল। সকালে আবার এলাকায় ফিরে প্রতিবাদ করেছে। সুজন কবিরাজ এর আগেও নিজের মাছের ঘেরের বাসায় আগুন দিয়ে এলাকার অনেকের নামে মিথ্যা মামলা দিয়েছিল বলে তারা জানান।
গৃহিনী মিনতি মিত্র জানান, সুজনের মামলার ভয়ে তাদের বাড়ির পুরুষেরা রাতে বাড়িতে ঘুমায়নি। এতে সারারাত তারা আতংকের মধ্যে ছিলেন।
পঞ্চকরণ ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড সদস্য আঃ জলিল খান জানান, এই ঘটনাটি একটি ন্যক্কার জনক ঘটনা। সুজন কবিরাজ এলাকাবাসিদের হয়রানি করতে প্রকাশ্যে নিজের খড়ের গাদায় আগুন দিয়েছে। এই গ্রামের পুরুষেরা সারারাত এলাকায় ছিলেন না বলে তিনি জানান।
এবিষয়ে পঞ্চকরণ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আঃ রাজ্জাক মজুমদারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এলাকাবাসিদের সাথে নিয়ে সকল কাগজপত্র দেখে একাধিকবার ওই জমিটি নিয়ে শালিশি বৈঠক করা হয়েছে। কিন্তু সুজন কবিরাজ কোন কিছুই মানতে চায় না। সে এলাকাবাসিদের হয়রানি করতে স্থানীয়দের সবার সামনে তার খড়ের গাদায় আগুন দিয়েছে।
এবিষয়ে মোরেলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্ত ( ওসি তদন্ত) ঠাকুর দাস মন্ডল জানান, অভিযোগ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে ওই ঘড়ের গাদায় আগুন দেয়া হয়েছে বলে এলাকাবাসির সাথে কথা বলে পুলিশ প্রাথমিক ভাবে জানতে পেরেছে। তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।
বাগেরহাটে প্রতিবেশির বিরুদ্ধে শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ ঃ
অন্যদিকে বাগেরহাট সদর উপজেলার বারুইপাড়ায় নিজাম শেখ (৫০) নামের এক প্রতিবেশির বিরুদ্ধে ১১ বছরের এতিম শিশুকে ধর্ষনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় ওই শিশুটির ফুফা রফিকুল ইসলাম দিদার ৩ জনকে আসামী করে বাগেরহাট মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। শিশুটির ডাক্তারী পরিক্ষা বাগেরহাট সদর হাসপাতালে সম্পন্ন হয়েছে। অভিযুক্ত নিজাম শেখ বাগেরহাট সদর উপজেলার বারুইপাড়া গ্রামের আমিন শেখের ছেলে। শিশুটির ফুফা রফিকুল ইসলাম দিদার ও এলাকাবাসি এই প্রতিবেদককে জানান, শিশুটির পিতা ১০-১২ বছর পুর্বে ঢাকায় একটি কারখানায় কাজ করা অবস্থায় নিরুদ্দেশ হন। জীবন বাঁচাতে মা দু‘টি কন্যা সন্তান দাদীর কাছে রেখে ঢাকায় চলে যান। পরে বড় মেয়েটিকে তার কাছে নিয়ে যান। এলাকাবাসির আর্থিক সহায়তায় এই শিশুটি বৃদ্ধা অসহায় দাদীর কাছে থেকে পাশ্ববর্তি একটি বিদ্যালয়ে ৭ম শ্রেনীতে লেখাপড়া করে।
১৩ এপ্রিল বিকালে ওই শিশুটি তার দাদীর ঘরে ঘুমাচ্ছিল। এসময় বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে প্রতিবেশি নিজাম শেখ (৫০) তার ঘরে প্রবেশ করে দরজা বন্ধ করে মুখ চেপে ধরে জোর পুর্বক ধর্ষন করে। এসময় তার ফুফু ওই বাড়িতে গিয়ে দরজায় ধাক্কা দিলে দরজা খুলে নিজাম পালিয়ে যায়।
পরের দিন ১৪ এপ্রিল অসহায় ওই শিশুটির ফুফা দিনমুজুর রফিকুল ইসলাম দিদার ওই বাড়িতে গিয়ে ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে তাকে অভিযুক্ত নিজাম, শেখ তার স্ত্রী ও ছেলে তাকে বেধড়ক মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। এবিষয়ে নারী নেত্রী ও বাগেরহাট সদর উপজেলার নবনির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান রিজিয়া পারভিন জানান, দাদীর বসত ঘরের মধ্যে ঘুমন্ত শিশুকে ধর্ষনের তিব্র নিন্দা ও ঘৃনা প্রকাশ করছি। শিশুরা নিজের ঘরের মধ্যে নিরাপদ নয়, এটি এইঘটনা আমাদের সামনে বড় ধাক্কা। অপরাধীর বিচার না হলে সমাজে অপরাধ প্রবনতা বেড়ে যায়। ধর্ষনের শিকার শিশু ও তার পরিবারের পাশে আমাদের থাকতে হবে এবং স্থানীয় ভাবে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। এঘটনায় দ্রুত অপরাধীদের ধরা ও বিচারের আওতায় আনার জন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি জোর দাবী জানাচ্ছি। বাগেরহাটের পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায় জানান, শিশু ধর্ষনের ঘটনায় বাগেরহাট মডেল থানায় মামলা হয়েছে। শিশুটির ডাক্তারি পরিক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। পুলিশ অভিযুক্তদের আটকের চেস্টা করছে বলে তিনি জানান।

সাতক্ষীরায় কয়েক কোটি টাকা নিয়ে সমিতি উধাও
                                  

রফিকুল ইসলাম, সাতক্ষীরা ঃ শত শত গ্রাহকের জমানো কয়েক কোটি টাকা নিয়ে সাতক্ষীরা থেকে উধাও হয়ে যাওয়া দারুস সালাম বহুমূখী সমবায় সমিতি লিমিটেডের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা থানায় জিডি করা হয়েছে। এ ঘটনায় গ্রাহকদের পক্ষে ভুক্তভোগী আব্দুর রহিম নামে এক ব্যক্তি গত ১৩-৮-২০১৮ তারিখে শহরে দারুস সালাম বহুমুখী সমবায় সমিতি লি. কর্মকর্তারাদের বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা থানায় একটি সাধারণ ডায়রী করেন। যার ডায়রী নং-৭৯৪। সমিতির চেয়ারম্যান মাও. রুহল আমিন, সাধারণ সম্পাদক ওহিদুজ্জামান, আবুল হোসেন, আজিজুল হকের বিরুদ্ধে জিডি করেছেন গ্রাহকরা। এসব ব্যক্তিদের প্রলোভনে পড়ে আম-ছালা সব হারিয়ে গ্রাহকরা দিশেহারা হয়ে পথে পথে ঘুরে তাদের খুঁজে বেড়াচ্ছেন। কিন্তু তাদের খোঁজ খবর পাওয়া যাচ্ছে না। তবে একটি সূত্রে জানা যায়, গ্রাহকের টাকা নিয়ে উধাও হয়ে কর্মকর্তা মাও. রুহুল আমিন ঢাকায় বিলাসবহুল ফ্লাট ক্রয় ও তার নিজের কাশিমারী গ্রামের এলাকায় বিলাশবহুল বাড়ি করেছেন ও জমি কিনেছেন। এছাড়া তিনি বর্তমানে সেখানে একটি মাদ্রাসায় শিক্ষকতা করছেন। সদর উপজেলা ঝুটিতলার আবুল হোসেন নিজের এলাকায় জমি কিনেছেন ও বাড়ি করেছেন। আজিজুল হক মেহেদীবাগ এলাকায় নতুন বাড়ি করেছেন। তবে ক্ষমতাসীনদলের স্থানীয় নেতাদের ছত্রছায়ায় থেকে আবুল হোসেন এলাকায় প্রকাশ্য ঘুরে বেড়াচ্ছেন বলে জানায় সূত্র। অন্য কর্মকর্তারা কেউ ঢাকায় আবার নিজের এলাকায় পলাতক রয়েছেন বলে গ্রাহকরা জানান। জানা গেছে, শহরের পলাশপোল জজকোর্ট সংলগ্ন এলাকায় সরদার প্লাজা ভবনে ২০০৪ সালে গড়ে ওঠে দারুস সালাম বহুমুখী সমবায় সমিতি লি. নামে জামায়াত শিবির পরিচালিত একটি সংগঠন। সেখান থেকে জেলার বিভিন্ন উপজেলায় সংগঠনটির শাখা প্রশাখা বৃদ্ধি পায়। সমিতিতে যোগ দেয় কয়েক হাজার সদস্য। দৈনিক, সাপ্তাহিক, মাসিক, বার্ষিক, শেয়ার কিস্তিতে মোটা অংকের লাভের প্রলোভন দেখিয়ে সহজ সরল মানুষের কাছ থেকে হাতিয়ে নেওয়া হয় কয়েক কোটি টাকা। গ্রাহকরা জানান জামায়াত শিবির পরিচালিত সংগঠনটি গতবছর রোজা ঈদের কয়েক মাস আগে সরদার প্লাজা ভবন থেকে কর্মকর্তারা স্থান পরিবর্তন করে বর্তমান পলাশপোল বৌ বাজারস্থ এলাকায় হেনাকঞ্জু নামে বাড়িতে অফিস নেয়। পলাশপোল বৌ বাজারস্থ কার্যালয়ের সাইন বোর্ড নামিয়ে তালা ঝুলিয়ে উধাও হয়ে যায় সমিতির কর্মকর্তারা। গতবছর ৩ আগস্ট থেকে ওই অফিসের কোনো কর্মকর্তা কর্মচারীদের খোঁজ পাওয়া যায়নি। সংগঠনটির চেয়ারম্যান টাকা নিয়ে উধাও হয় আরো ১০ দিন আগে। মাও. রুহল আমিন যশোর জেলার শার্শা থানার কালিনি গ্রামের এন্তাজ আলি সরদারের ছেলে। রুহল আমিন শহরে রসুলপুর গ্রামে বসবাস করতেন। সংগঠনটির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক জামায়াত নেতা হাফেজ মাও. আবুল হোসেন। আবুল হোসেন ঝুটিতলা এলাকার বাসিন্দা। সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক ও জামায়াত নেতা মো. ওহিদুজ্জামান পুরাতন সাতক্ষীরার বজলুর রহমানের ছেলে। এছাড়া ওহিদুজ্জামান জামায়াতের সাবেক এমপি রিয়াসাত আলির আপন শ্যালক। সংগঠনটির আরএমও আজিজুল হক। সদরের হাওয়ালখালী গ্রামের ইয়াছিন সরদারের ছেলে। সংগঠনের মাও. রুহল আমিন, ওহিদুজ্জামান, আবুল হোসেন, আজিজুল হকসহ তাদের লোকজন শতশত গ্রাহকের জমানো টাকা ভাগবটোয়ারা করে পালিয়ে যায়। গ্রাহকদের জমানো টাকায় কেনা ওই সংগঠনের অফিসের মটরসাইকেল, কম্পিউটারসহ অফিসের মূল্যবান আসবাবপত্রগুলো জামায়াত নেতা ওহিদুজ্জামান, আবুল হোসেনসহ অন্যরা ভাগ করে তাদের বাড়িতে ব্যক্তিগত কাজে ব্যবহার করছেন বলে সূত্রে জানায়। গ্রাহকরা জানান, জজকোর্ট এলাকায় ভেন্ডার ব্যবসায়ী শওকতের ৯ লাখ, রহিমের ৭০ হাজার, সেলিম মুদি দোকানদারের ৮০ হাজার, সংগঠনের অফিস সহকারী শাহাদাতের ১ লাখ, আশাশুনির থানার বসুখালী গ্রামের আসমত আলির ৮০ হাজার, আসমত আলির শ্যালকের ৩ লাখ, রসুলপুর এলাকার ফরিদ হোসেনের ৭০ হাজার টাকাসহ এরকম শত শত গ্রাহকের কাছ থেকে কয়েক কোটি টাকা নিয়ে উধাও হয়েছে। তবে গ্রাহকের টাকা আত্মসাতকারী আবুল হোসেন উপর মহলের ছত্রছায়ায় থেকে শহরে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এ ঘটনায় কয়েকজন গ্রাহক সাতক্ষীরা থানায় সাধারণ ডায়রী করেছেন বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন সচেতন মহল ও সমিতির গ্রাহকরা।

মিয়ানমারের নির্মম নির্যাতনের কথা ভুলবে না বিশ্ব
                                  

মানবিকতা ও উদারতায় রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে নজির স্থাপন করেছে বাংলাদেশ

সংবাদ সন্মেলনে জাতিসংঘের আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল মার্ক   

মোঃ জানে আলম সাকী, কক্সবাজার :
জাতিসংঘের আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল মার্ক লোকোক বলেন, পুরো বিশ্ব এটি কখনও ভুলবে না, মিয়ানমার থেকে কী নির্মম নির্যাতনের মুখে রোহিঙ্গারা প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছিল। বাংলাদেশ সরকার ও এ দেশের মানুষ তাদের মানবিকতা ও উদারতা নিয়ে আশ্রয় দিয়েছিল। এতো বিপুল সংখ্যক উদ্বাস্তুকে আশ্রয় দিয়ে নজির স্থাপন করেছে বাংলাদেশ। মিয়ানমার তাদের আদিগোষ্ঠী রোহিঙ্গার ওপর যে নিপীড়ন চালিয়েছে তা অমানবিক। সভ্য যুগে এটি কল্পনাও করা যায় না। সংবাদ সন্মেলনে মার্ক লোকক উল্লেখ করেন, রোহিঙ্গাদের কারণে বাংলাদেশের এ অঞ্চলের মানুষ নানাভাবে দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে। তাই বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাসহ স্থানীয় ৩ লাখ মানুষের কথা চিন্তা করে এক বিলিয়ন ডলারের একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছে জাতিসংঘ। কক্সবাজারের উখিয়ার রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন শেষে ২৬ এপ্রিল বিকেলে কক্সবাজারের হোটেল সায়মন বিচ রিসোর্টের সম্মেলন কক্ষে ইউএনইএচসিআর, আইওএম ও ইউএনওসিএইচএ এর যৌথ সংবাদ সন্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনার ফিলিপ্পো গ্রান্ডি বলেছেন, রোহিঙ্গাদের তাদের নিজ দেশে প্রত্যাবাসনের জন্য জাতিসংঘের তৎপরতা অব্যাহত থাকবে। কিন্তু মিয়ামারের সাম্প্রতিক অভ্যন্তরীণ অস্থিরতারর জন্য প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া বিলম্বিত হচ্ছে। তিনি বলেন, এ সঙ্কট সমাধানে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে সঙ্গে নিয়ে কাজ করছে জাতিসংঘ। মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের জন্য একটি ভালো পরিবেশ তৈরির সব রকমের প্রচেষ্টা চলছে। রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তায় একযোগে কাজ করার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। ফিলিপ্পোগ্রান্ডি বলেন, রোহিঙ্গা সঙ্কটের জন্য মিয়ানমারই দায়ী এবং সমাধানও মিয়ানমার থেকেই আসতে হবে। গতবছর রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের বিষয়ে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মাঝে সমঝোতা স্বাক্ষর হয়েছে। আমরা আশাবাদী ছিলাম, মিয়ানমার চুক্তিমতো কাজ করবে। কিন্তু তারা এখন আরাকানে যে পরিস্থিতি মোকাবেলা করছে তাতে প্রত্যাবাসন বিলম্বিত হবেই। রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারের আন্তরিকতারও অভাব রয়েছে। বাংলাদেশ-মিয়ানমারের সঙ্গে যৌথ আলোচনায় মানবাধিকার নিয়েই রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন নিশ্চিত করতে কাজ করছে জাতিসংঘ। জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনার ফিলিপ্পো গ্রান্ডি সকালে জাতিসংঘের আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল মার্ক লোকোক ও আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আইওএম) মহাপরিচালক এন্তোনিও ভিটোরিনোকে নিয়ে রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন করেন। আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আইওএম) মহাপরিচালক এন্তোনিও ভিটোরিনো বলেন, আমারা চাই রোহিঙ্গারা নিজ দেশে ফিরে যাক। ক্যাম্প পরিদর্শনে গিয়ে রোহিঙ্গাদের সাথে কথা হয়েছে। তারাও (রোহিঙ্গারা) ফিরে যেতে চান। তবে, নাগরিকত্ব ও স্বাধীনভাবে মাথা উচুঁ করে থাকার নিশ্চয়তা নিয়ে ফিরতে চান তারা। এটি যৌক্তিক। আমরাও চাই তারা সেই অধিকার নিয়েই ফিরে যাক। রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে নেয়ার বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ফিলিপ্পো গ্রান্ডি বলেন, ভাসানচরে নিরাপদ ও সুন্দর পরিবেশে রোহিঙ্গাদের জন্য আবাসন তৈরি করেছে বাংলাদেশ সরকার। কিন্তু এটি যে নিরাপদ হবে এ বিষয়টি রোহিঙ্গাদের কোনো মতেই বিশ্বাস করানো যাচ্ছে না। তাই তারা ওখানে স্থানান্তরিত হতে অস্বীকৃতি জানাচ্ছে। জোর করে তাদের ভাসানচরে পাঠানোর পক্ষেও নই আমরা। এর আগে এইদিন সকালে কক্সবাজারের উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেন জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা (ইউএনএইচসিআর) ও আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) সহ আন্তর্জাতিক সাহায্যকারী সংস্থার তিন প্রধানের নেতৃত্বে ১৭ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল। এ সময় তারা উখিয়ার বালুখালীতে বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি-ডব্লিউএফপি এর বিভিন্ন খাদ্য বিতরণ কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। একদিন আগে ২৫ এপ্রিল বিকেল ৩টার দিকে ঢাকা থেকে কক্সবাজার বিমানবন্দরে পৌঁছান জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনার ফিলিপ্পো গ্রান্ডির নেতৃত্বে ১৭ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল। কক্সবাজার পৌঁছে তারা প্রথমে কক্সবাজারের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক আশরাফুল আবছারের সঙ্গে বৈঠক করেন। এরপর জাতিসংঘের প্রতিনিধি দল শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (অতিরিক্ত সচিব) মো. আবুল কালামের সঙ্গে বৈঠক করেন।

কক্সবাজার শহরে র‌্যাবের সাথে‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ মাদক ব্যবসায়ী নিহত
                                  

মোঃ জানে আলম সাকী, কক্সবাজার : কক্সবাজার শহরে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দু’জন নিহত হয়েছে। বুধবার রাত ২:৩০ঘটিকায় সৈকতের ডায়বেটিকস পয়েন্ট সংলগ্ন ঝাউবন এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে একটি দু’নলা বন্দুক, তিন রাউন্ড তাজা কার্তুজ ও ১০ হাজার পিস ইয়াবা জব্দের দাবি করেছে i¨র‌্যাবের-১৫ সহকারী পরিচালক এএসপি শাহ আলম এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহতদের মধ্যে একজন কক্সবাজার শহরের পশ্চিম বাহারছড়ার আনু প্রধানের পুত্র মুহাম্মদ মাসুম (৩৫)। অপরজনের পরিচয় জানা যায়নি।

র‌্যাবের-১৫ রামুর সহকারী পরিচালক এএসপি শাহ আলম জানান, বুধবার রাত ২.০০টার দিকে সৈকতের ঝাউবন এলাকা দিয়ে ইয়াবা পাচার হচ্ছে এমন খবরের প্রেক্ষিতে র‌্যাবের-১৫’র টহল দল ডায়বেটিকস পয়েন্টে চেক-পোস্ট বসায়। কিছুক্ষণ পর একদল লোক ঝাউবাগান থেকে বের হতে আসতে দেখে র‌্যাবের। তারা সেখানে র‌্যাবেরব উপস্থিতি টের পেয়ে গুলিবর্ষণ শুরু করে। র‌্যাবেরা আত্মরক্ষার্থে গুলি চালায়। ১৫-২০ মিনিট গোলাগুলির পর দুর্বৃত্তরা পিছু হটে যায়।


তখন ঘটনাস্থলে গিয়ে দুজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। এ সময় সেখান থেকে একটি দু’নলা বন্দুক, তিন রাউন্ড কার্তুজ ও ১০ হাজার পিস ইয়াবা পাওয়া যায়। গুলিবিদ্ধদের উদ্ধার করে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

এএসপি শাহ আলম আরো বলেন, একজনের পকেটে থাকা একটি চিরকুটে তার নাম মাসুম, পিতা আনু প্রধান বলে লেখা রয়েছে। অপরজনের নাম এখনো পাওয়া যায়নি। তার বয়স আনুমানিক ৪০ হবে। মরদেহগুলো কক্সবাজার সদর থানা পুলিশকে হস্তান্তর করা হয়েছে।

কক্সবাজার সদর থানার ওসি (তদন্ত) মো. খায়রুজ্জামান তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মরদেহগুলো ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে নেওয়া হয়েছে। তাদের বিস্তারিত পরিচয় জানতে চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় পৃথক মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।

কক্সবাজারের ঈদগাঁওতে দাখিলে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থী নিহত ॥ বাসে আগুন-সড়ক অবরোধ
                                  

মোঃ জানে আলম সাকী, (কক্সবাজার) :চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের ঈদগাঁও কলেজ গেট এলাকায় হানিফ পরিবহনের একটি বাস ও মোটরবাইকের মুখোমুখি সংঘর্ষে আসিফ কামাল ইমরান নামের এক যুবক নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার (৭ মে) সকাল ১০টার দিকে ঈদগাঁও কলেজ গেটের দক্ষিণ পাশে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত ইমরান ঈদগাঁও কালিরছড়া এলাকার আবু তাহেরের ছেলে এবং ঈদগাঁও শাহ জব্বারিয়া দাখিল মাদ্রাসা থেকে এবারের দাখিল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে। ঘটনায় মোটর সাইকেলের আরও তিন আরোহী গুরুতর আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে একজনকে মুর্মুর্ষ অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও আরেকজনকে ডুলহাজারা মেমোরিয়াল খ্রিস্টান হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অপর একজন প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে বাসায় ফিরে গেছে। আহতরা হলেন, ঈদগাঁও কলিরছড়া এলাকার নুরুর ছেলে শামীম (১৮), শামশু আলমের ছেলে রাহুল (১৮), আলমের ছেলে জয়নাল (১৮)। তাদের মধ্যে শামীম ও রাহুলের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে। জানা যায়, আহতের মধ্যে তিনজনই ঈদগাঁও আদর্শ শিক্ষা নিকেতন কেজি স্কুলের ছাত্র। দুর্ঘটনার পর সহপাঠীর আহতের সংবাদে হানিফ পরিবহনের বাসে আগুন দিয়েছে শিক্ষার্থীরা। বাসস্ট্যান্ডে সড়কে টায়ার জালিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে কেজি স্কুলের শিক্ষার্থীরা। এসময় সড়কে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে ঈদগাঁও থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। অন্যদিকে মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় বাসে আগুন দিয়ে জালিয়ে দেওয়ার ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেছে স্থানীয় পরিবহন সংগঠনের নেতারা। তারা জানান, সড়কে দুর্ঘটনা হবে এটা স্বাভাবিক, ঘটনায় মৃত্যু হলে স্বজনদের যেমন মায়া লাগে তার চেয়ে আমাদের আরো বেশি মায়া লাগে। হতাহতদের চিকিৎসা না দিয়ে বাসে আগুন দিয়ে জালিয়ে দেওয়া দন্ডনীয় অপরাধ। এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মো, আসাদুজ্জামান বলেন, খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। ঈদগাঁও আদর্শ শিক্ষা নিকেতন কেজি স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. শহিদুল হকের মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।

কচুয়া প্রেসক্লাবের ৩ যুগপূর্তি উৎসব অনুষ্ঠিত
                                  

জাহিদুল ইসলাম বুলু, কচুয়া(বাগেরহাট):কচুয়া প্রেসক্লাবে ৩ যুগপূর্তি উৎসব পালন উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা, র‌্যালী ও কৃতিজনদের সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠান গতকাল কচুয়া প্রেসক্লাবের উদ্যেগে প্রেসক্লাবের সামনে মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। প্রেসক্লাবের সভাপতি  খোন্দার নিয়াজ ইকবালের সভপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  সাবেক অতিরিক্ত মহাপরিচালক বিটিবি শেখ সালেক। অনুষ্ঠান অন্যান্যদের মধ্যে বক্তৃতা করেন  অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার বাগেরহাট  মোঃ মিজানুর রহমান,প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ সরকারি কচুয়া আবু নাসের মহিলা ডিগ্রি কলেজ মোঃ সাইফুল ইসলাম, ব্যবস্থাপনা পরিচালক জেবি গ্রুপ সরদার জাহিদুল ইসলাম, সম্পাদক ও প্রকাশক মানবাধিকার খবর মোঃ রিয়াজ উদ্দিন,অধ্যক্ষ পিরোজপুর মহিলা কলেজ মোঃ সাইফুদ্দিন, সহযোগী অধ্যাপক খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শিবু প্রসাদ বসু, বাগেরহাট উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রিজিয়া পারভীন,সিনিয়ার ব্রডকাস্ট র্জার্নালিস্ট আহারার হোসেন, ব্যবস্থাপনা পরিচালক মৈত্রী গ্রুপ কে এম ফরিদ হাসান,সাবেক উপ সচিব পানি উন্নয়ন বোর্ড  স্বপন কুমার মন্ডল,সংবাদ উপাস্থাপক বিজয় টেলিভিশন কনুজ সিকদার,অপিসার্স ইন চার্জ কচুয়া থানা শেখ সফিকুর রহমান, ওসি তদন্ত মোঃ ইকবাল হোসেন।এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাবের সহ সভাপতি সমীর বরন পাইক,সাবেক সভাপতি তুষার রায় রনি,সাধারন সম্পাদক জাজী সাইদুজ্জামান, সিকদার ময়নুল ইসলামসহ কচুয়া প্রেসক্লাবের সাংবাদিক ও কচুয়ার গর্বিত সন্তাগন। 

দুই হাত-দুই পা কাটা, তবু মানুষ হওয়ার স্বপ্ন দেখছে কক্সবাজারের মহেশখালীর সালাহ্ উদ্দীন
                                  

মোঃ জানে আলম সাকী, (কক্সবাজার): পৃথিবীতে অনেক মানুষ আছেন যারা শারীরিক প্রতিবন্ধকতাকে জয় করে পৌঁছে গেছেন অনন্য উচ্চতায়। যেমন পদার্থ বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং, অ্যাথলেট মারলা রুনিয়ান, ভারতীয় সুধা চন্দ্রন।

কর্মই তাদের গোটা বিশ্বের কাছে পৌঁছে দিয়েছে। অন্য ১০ জনের মতো শারীরিক ভাবে অক্ষম হয়েও একজন মানুষ সফল হতে পারে সেটা দেখিয়ে যাচ্ছেন মহেশখালীর সালাহ্ উদ্দীন।

জন্মগত ভাবে যার হাত পা নেই। যার কাছে শারীরিক প্রতিবন্ধকতাই ছিল সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। যা তিনি অনায়াসেই জয় করে এগিয়ে চলেছেন সামনের পথে। কিন্তু প্রতিবন্ধকতা তাকে কখনো দমাতে পারেনি। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে থাকা তার মতো প্রতিবন্ধীকে অনুপ্রাণিত করতে স্কুলে ভর্তি হয়েছেন তিনি। নিজের কর্মের মাধ্যমে তিনি পৌঁছে যেতে চান অন্য এক উচ্চতায়।

শারীরিক প্রতিবন্ধকতা তাকে ঘরে আটকে রাখতেও পারেনি। প্রতিবন্ধী সালাহ্ উদ্দীনের স্বপ্ন নিজ কর্মে অমর হয়ে থাকবেন তিনি সবার মাঝে। প্রমাণ করে চলেছেন অদম্য ইচ্ছাশক্তি মানুষকে বড় করে তোলে।

ছেলেটির পুরা নাম মোহাম্মদ সালাহউদ্দীন (১৩)। কক্সবাজার জেলার মহেশখালী উত্তর নলবিলা গ্রামের বাসিন্দা। পিতার নাম মোহাম্মদ জালাল। জালালের আদরের ছেলেটি জন্মগত প্রতিবন্ধী। কিন্তু একজন প্রতিবন্ধীর সামনে যে সামাজিক, পারিবারিক, পরিবেশগত প্রতিবন্ধকতা থাকে, এসব কিছুকে ডিঙিয়ে নিজেকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে দুর্বার গতিতে।

বিখ্যাত দার্শনিক সেক্সপিয়ারের মতে, পৃথিবী একটি নাট্যমঞ্চ। নাট্যমঞ্চের এই পৃথিবীতে মানুষ টাকা আয় করার জন্য নিজেকে বিভিন্ন নাটকীয় ভাবে উপস্থাপন করে ভিক্ষাবৃত্তি করছে। কেউ ডাক্তারের নকল প্রেসক্রিপশন বানিয়ে মানুষের ধারে ধারে ভিক্ষা করছে। এমন নজিরও রয়েছে যে, মানুষ নিজের লিঙ্গ পরিবর্তন করে তৃতীয় লিঙ্গের রূপধারণ করে চাঁদা তুলছে।

শুধু কি তাই! টাকা আয় করার জন্য বহু পথে থেমে নেই প্রতিবন্ধী মানুষের ছলচাতুরীও। কিন্তু এই ছেলেটির জন্মগত, সৃষ্টিকর্তা প্রদত্ত ভিক্ষাবৃত্তির সুযোগ থাকা সত্বেও ভিক্ষাবৃত্তি করছেন না। ভিক্ষাবৃত্তিকে পেশা হিসেবে বেছে নেয়নি।

সকল প্রতিবন্ধকতাকে পিছনে ফেলে, মানুষের হেয়, অবহেলা, কটু দৃষ্টিকে পিছনে ফেলে সমালোচনাকে পাত্তা না দিয়ে সালাহউদ্দীন এগিয়ে যাচ্ছেন মানুষের মতো মানুষ হতে। সামাজিক যে বৈষম্য, সে বৈষম্যকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চায় তিনি। প্রতিবন্ধী সালাহউদ্দীনেরা থামেনা। সালাহ উদ্দীনদের জন্ম হয়েছে এগিয়ে যাওয়ার জন্য।

দরিদ্র পিতার সন্তান তিনি। বাবা পেশায় একজন জেলে। এক ভাই ও পাঁচ বোনের সংসারে একমাত্র বাবা মুহাম্মদ জালালের আয়ে সংসার চলে। বলতে গেলে দিনে আনে দিনে খায় এরা। কিন্তু তীব্র দারিদ্রতা সালাহ উদ্দীনের ইচ্ছা শক্তিকে থামাতে পারেনি।

অত্যন্ত অমায়িক একটা ছেলে। হাত পাঁ বিহীন প্রতিবন্ধী হয়েও মোড়ানো পায়ের পেশীশক্তির উপর ভর করে লিখে তিনি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মাধ্যমিক শিক্ষা লেবেলে দুটি সার্টিফিকেট অর্জন করেছেন। বর্তমানে মহেশখালী উপজেলার ছোট মহেশখালী ইউনিয়নের উত্তর নলবিলা উচ্চ বিদ্যালয়ে নবম শ্রেণীতে অধ্যয়ন করছেন বলে জানান বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. রফিকুল আলম।

তিনি আরো বলেন, ‘সালাহ্ উদ্দীন উত্তর নলবিলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে পিএসসি এবং উত্তর নলবিলা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে জেএসসি পরীক্ষায় যথাক্রম জিপিএ-এ গ্রেট (পিএসসি-৪.৩৬-জেএসসি-৪.০৬) সাফল্যর সাথে উত্তীর্ণ হয়েছেন।’

স্থানীয় ইউপি সদস্য লিয়াকত আলী বলেন, ‘বিচক্ষণ আর মেধাবী এই ছেলেটিকে নিয়ে অনায়াসে গর্ব করা যায়। যে গ্রামে প্রতিবন্ধীত্ব জীবনকে হার মানিয়েছে সালাহউদ্দীন। সে গ্রামে আমাদের নিজের জন্ম বলে গর্ববোধ করি।’

জানিনা কেউ এগিয়ে আসবেন কিনা প্রতিবন্ধী মেধাবী এ ছেলের লেখাপড়ার দায়িত্ব নেওয়ার। তবে জগত সংসার বড় নিষ্ঠুর হলেও এখনো এ দেশে মানুষ মানুষের জন্য আর জীবন জীবনের জন্য দায়িত্ববান হয়ে কেহ না কেহ এগিয়ে আসবেই! সেই আশায় পথ চলতে থাকে সালাহ্ উদ্দীন ও তার মতো বহু প্রতিবন্ধী!

 

বিশ্বের মানবতার মা মমতাময়ী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহায্য প্রার্থনা করছি। আমি একজন নগন্য মানবাধিকারকর্মী সাংবাদিক সালাহ উদ্দীনের দিকে একটু নজর দেন। তাহলে সে এবং তার পরিবার চিরদিন আপনার কথা স্মরণ রাখবে।

শ্রীপুরে স্কুলে স্কুলে চলছে অনৈতিক পরীক্ষা
                                  

আতাউর রহমান সোহেল, গাজীপুর প্রতিনিধি ঃ গাজীপুরের শ্রীপুরে বিভিন্ন স্কুলে ধারাবাহিক মূল্যায়নের নামে চলছে অনৈতিক পরীক্ষা সেই সাথে অর্থ বাণিজ্য । হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে কোটি কোটি টাকা ।শ্রীপুর উপজেলার ৫২টি মাধ্যমিক স্কুল ও ২৮টি মাদ্রাসার মধ্যে বেশিরভাগ স্কুল ও মাদ্রাসা সরকারের নির্দেশ অমান্য করে স্কুলে প্রস্তুতিমূলক পরীক্ষা নিচ্ছে। সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বছরে ২টি পরীক্ষা অথ্যাৎ অর্ধ-বার্ষিক ও বার্ষিক পরীক্ষা নেওয়ার বিধান থাকলেও তা মানছেনা শ্রীপুরের বেশ কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান । বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদকে ম্যানেজ করে ধারাবাহিক মূল্যায়নের নামে নেওয়া হচ্ছে প্রস্তুতিমূলক পরীক্ষা । আর এতে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে হাজার হাজার শিশু শিক্ষার্থী । চলতি এপ্রিল মাসের ১৫ তারিখ থেকে শ্রীপুরে বিভিন্ন স্কুলে এ পরীক্ষা গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে । ইতিমধ্যে ক্লাসে ক্লাসে দেওয়া হচ্ছে নৌটিশ । নৌটিশে বলা হচ্ছে প্রস্তুতিমূলক পরীক্ষা বাধ্যতামূল । যে সকল শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে না তাদের ভর্তি বাতিল বলে গণ্য হবে । পুন:ভর্তি হতে গেলে জানুয়ারী থেকে এপ্রিল মাস পর্যন্ত সকল ফ্রি পরিশোধ করে ভর্তি হতে হবে । এভাবে বাধ্য করা হচ্ছে শিক্ষার্থীদের ।আবার পরীক্ষায় কোন বিষয়ে ফেল করলে অভিবাভক ডেকে এনে জরিমানা আদায়ের জল্পনা চলছে । অসহায় শিক্ষার্থী বাধ্য হয়ে পরীক্ষা দিতেই হবে কি ?

শ্রীপুরে সরেজমিন থেকে জানাযায় , চলতি মাসের ১৮ তারিখ থেকে পরীক্ষা শুরু হলেও তা শেষ হতে সময় লাগবে মোট ১২ দিন । তাছাড়া আগামী ১মে থেকে ১৩ জুন পর্যন্ত পবিত্র রমজান ও গ্রীষ্মকালীণ অবকাশ উপলক্ষ্যে সর্বমোট ৩৪ দিন বিদ্যালয়ের কার্যক্রম বন্ধ থাকবে । অর্ধ-বার্ষিক পরীক্ষা শুরু হতে পারে ২০ থেকে ২৫ শে জুনের মাঝে । বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে যে পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে তা শেষ হতে হতে রমজান চলে আসবে । রমজানে বিদ্যালয় বন্ধ থাকার কারনে তারা অর্ধ-বার্ষিক পরীক্ষার সিলেবাস শেষ করতে বিদ্যালয়ে ক্লাস পেতে পারে সর্বোচ্ছ এক সপ্তাহ । এই অল্প সময়ে অর্ধ-বার্ষিক পরীক্ষার সিলেবাস শেষ করা আদৌও সম্ভব হবে কি ? সংশয় রয়েছে ।
শ্রীপুরের মাওনা বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয় , সাতখামাইর উচ্চ বিদ্যালয় , হাজী ছোট কলিম উচ্চ বিদ্যালয় , ধনুয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় , টেপিরবাড়ী আনসার উচ্চ বিদ্যালয় ,টেপিরবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় ,তেলিহাটি উচ্চ বিদ্যালয় সহ বেশ কিছু বিদ্যালয় এবং সকল কিন্ডার গার্টেন প্রতিষ্ঠান সরকারের নির্দেশ অমান্য করে প্রস্তুতিমূলক পরীক্ষা গ্রহণের প্রস্তুতি নিচ্ছে । পরীক্ষা উপলক্ষ্যে পরীক্ষার ফ্রি বাবদ আদায় করা হচ্ছে ৯ম-১০ম ৪ শত টাকা এবং ৬ষ্ঠ- ৮ম ৩শত পঞ্চাশ টাকা ।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে তেলিহাটি উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর এক ছাত্র বলেন আমাদের প্রধান শিক্ষক বর্তমানে এমপি সাহেবের দোহায় দিয়ে চলে ।আমরা বেশ কিছু শিক্শার্তী প্রস্তুতিমূলক পরীক্ষা না নেওয়ার প্রস্তাব দিলে তা তিনি প্রত্যাখান করেন । তিনি বলেন পরীক্ষা দিলে আমাদেও উপকার হবে ।অথচ এখনো সিলেবাস অসম্পূর্ণ রয়েগেছে ।
হাজী ছোট কলিম উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী ফারজানা আক্তার বলেন , প্রস্তুতিমূলকের নামে এ অনৈতিক পরীক্ষার মাধ্যমের আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি । কারণ সিলেবাস শেষ না হওয়ায় সম্পর্ণ প্রস্তুতি নেওয়া যেমন সম্ভব হচ্ছে না , তেমনি এ পরীক্ষা শেষ হতে না হতেই স্কুল প্রায় ৩৪ দিনের জন্য বন্ধ হতে যাচ্ছে । খোলা হওয়ার পর প্রায় সপ্তাহ খানেকের মধ্যেই আবার অর্ধ-বার্ষিক পরীক্ষা । এক পরীক্ষার সঠিক মূল্যায়ন শেষ হবার পূর্বেই আবার পরীক্ষা ।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে , হাজী ছোট কলিম উচ্চ বিদ্যালয় ও তেলিহাটি উচ্চ বিদ্যালয়ের বেশ কিছু অভিভাবক বলেন পরীক্ষার নামে আদায় করা হচ্ছে অতিরিক্ত টাকা । আমারা তো এ এলাকার স্থানীয়ন লোকজন নই তাই কিছু বলতে পারছিনা । আমার এ সকল অনৈতিক পরীক্ষা না নেওয়ার দাবি জানাচ্ছি , সেই সাথে বলছি সময় নষ্ঠ না করে ক্লাস করার জন্য ।
কাওরাইদ কে এন উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক অভিজিৎ রয় বলেন , আমারা কখনোই মডেল পরীক্ষা নেই না । সরকার বছরে দুটি পরীক্ষা নেওয়ার বিধান করে দিলেও তা মানছে না অনেক প্রতিষ্ঠান প্রধানরা । বছরে দুটি পরীক্ষা নেওয়ার দাবি জানিয়ে তিনি বলেন বাড়তি পরীক্ষা নেওয়ার কারনে ছেলে মেয়েরা ব্যপক সময় নষ্ট হয় । তাই সফলতার মুখ কম দেখচ্ছি । বিকল্প হিসেবে ক্লাসটেস্ট নেওয়া যেতে পারে ।
তেলিহাটি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলী মনসুর মানিক অনৈতিক পরীক্ষা নেওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন ,এপ্রিল মাসের ১৮ তারিখ থেকে শুরু হতে যাচ্ছে ধারাবাহিক মূল্যায়নের নামে অনৈতিক পরীক্ষা । পরীক্ষার ফ্রি এর কথা জানতে চাইলে তিনি বলেন ৯ম-১০ম শ্রেণীতে সম্ভবত ৪৫০ টাকা করে ধরা হয়েছে ।
শ্রীপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম বলেন ,সরকারি বিধি অনুযায়ী বছরে দুটি পরীক্ষা নেওয়া কথা । কেউ যদি অর্থ আদায়ের নিয়তে পরীক্ষা নিতে চাই তা দেওয়া হবে না । যে সকল স্কুলে পরীক্ষা নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে আমি তাদের সাথে কথা বলে বন্ধের ব্যবস্থা নিচ্ছি ।

 

মানবাধিকার খবরঃ মোঃ রবিউল ইষলাম

শ্রীপুরে কিশোর-কিশোরীদের সচেতনতা বিষয়ক সভা
                                  

আতা্উর রহমান সোহেল, গাজীপুর প্রতিনিধি:
গাজীপুরের উপজেলা শ্রীপুরে কিশোর- কিশোরীদের প্রজনন ও স্বাস্থ্য বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠীত হয়েছে । গাজীপুরের শ্রীপুরে পরিবার পরিকল্পনা ,মা ও শিশু স্বাস্থ্য ,কিশোর কিশোরীদের প্রজনন স্বাস্থ্য,পুষ্টি এবং জেন্ডার বিষয়ে প্রচার ও জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে উদ্ব্দ্ধু করন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের আয়োজনে বুধবার উপজেলা পরিষদের ক্ষনিকা সভাকক্ষে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।
কর্মশালায় মা ও শিশু স্বাস্থ্য ,কিশোর কিশোরীদের প্রজনন স্বাস্থ্য,পুষ্টি এবং জেন্ডার বিষয়ে প্রশিক্ষনপ্রদান করেন পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের গাজীপুরের উপ-পরিচালক মিসেস লাজু শামসাদ হক, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জিনাত শরমিন, পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের আইই এম ইউনিটের মনিটরিং কর্মকর্তা প্রবীর কুমার সেন, মেডিকেল অফিসার ডা: মুনজুরুল আলম। কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেহেনা আক্তার,সহকারী কমিশনার ভূমি ফাতিমা তুজ জোহরা । কর্মশালায় অংশগ্রহন করেন শিক্ষক,সাংবাদিক, পেশাজীবি,যুব সংগঠনের সদস্য ও স্থানীয় ব্যাক্তিবর্গ।

 

সাতক্ষীরায় ৭উপজেলা পরিষদ নির্বাচন// ৫৯৭ টি কেন্দ্রে ভোটের ফলাফল
                                  

রফিকুল ইসলাম, সাতক্ষীরা, কালিগঞ্জ ঃ সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে রবিবার (২৪ মার্চ) কালিগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ও ভয়ভীতিমুক্ত পরিবেশ নিশ্চিত করা হলেও উপজেলার ১২ ইউনিয়নের ৭৮ টি কেন্দ্রের অধিকাংশতে ভোটারদের উপস্থিত ছিল কম। উপজেলার বন্দকাটি, এম.এমপুর চৌমুহনী, ফতেপুর, নামাজগড়, ইন্দ্রনগরসহ কয়েকটি কেন্দ্রে মহিলা ভোটারদের ভিড় থাকলেও পুরুষদের উপস্থিতি তুলনামূলক কম ছিল।
উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, কালিগঞ্জ উপজেলার ১২ ইউনিয়নের মোট ভোটার ২ লক্ষ ১৭ হাজার ৭০৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লক্ষ ৯ হাজার ৯১৬ এবং মহিলা ভোটার ১ লক্ষ ৭ হাজার ৭৯০ জন। ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন ১ লক্ষ ৩ হাজার ৪৩০জন। ভোট প্রদানের হার শতকরা ৪৭ দশমিক ৩৮ ভাগ। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে তিনজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন। বাতিল ভোটের সংখ্যা ২ হাজার ৩৩০ টি। ৫৬ হাজার ৮৩৮ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাঈদ মেহেদী (ঘোড়া প্রতীক)। নিকটম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী শেখ মেহেদী হাসান সুমন (আনারস) পেয়েছেন ৩৪ হাজার ৭৬৬ ভোট। আওয়ামী লীগ সমর্থিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী অবসরপ্রাপ্ত এএসপি আলহাজ্জ্ব শেখ আতাউর রহমান পেয়েছেন ৯৪৯৬ ভোট।
ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে প্রতিদ্বন্দ্বিকারী প্রার্থী ছিলেন ৭জন। ৪৩ হাজার ১৮১ ভোট পেয়ে ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শেখ নাজমুল ইসলাম (তালা)। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক ও উজ্জীবনী ইনস্টিটিউটের প্রধান শিক্ষক ফিফা রেফারী শেখ ইকবাল আলম বাবলু (বই প্রতীক) পেয়েছেন ২৬ হাজার ৬২২ ভোট। এছাড়া সাবেক ডেপুটি কমান্ডার আব্দুল হাকিম (টিয়া পাখি) পেয়েছেন ১১ হাজার ৫৪৬ ভোট, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ডিএম সিরাজুল ইসলাম (মাইক) পেয়েছেন ২ হাজার ২৮৯ ভোট। উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সাবেক সভাপতি গাজী জাহাঙ্গীর কবির (উড়োজাহাজ) পেয়েছেন ৩ হাজার ৫১৯ ভোট, সাবেক যুবলীগ নেতা আব্দুল কুদ্দুস (টিউবওয়েল) পেয়েছেন ১২ হাজার ৩৯১ ভোট এবং মাছ ব্যবসায়ী আব্দুল হামিদ সরদার (চশমা) পেয়েছেন ৫৭৫ ভোট।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন চার প্রার্থী। ধলবাড়িয়া ইউনিয়ন মহিলা যুবলীগের সভানেত্রী সাবেক ইউপি সদস্য দিপালী রাণী ঘোষ (ফুটবল) ৩৬ হাজার ৬৭৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি বিষ্ণুপর ইউপি’র সাবেক সদস্য ফারজানা আক্তার আফি (হাঁস) পেয়েছেন ৩৪ হাজার ১৫৯ ভোট। এছাড়া উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী সাবেক ইউপি সদস্য জেবুন্নাহার জেবু (পদ্মফুল) পেয়েছেন ১৬ হাজার ৯৯১ ভোট এবং মিসেস আফসানা বেগম (কলস) পেয়েছেন ১০ হাজার ৩৩১ ভোট।

শ্যামনগরঃ শ্যামনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ২০১৯ শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হয়েছে। শ্যামনগর উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে ৮৯টি কেন্দ্রে প্রাপ্ত ফলাফলে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে এস এম আতাউল হক দোলন নৌকা প্রতীক নিয়ে ৭২ হাজার ৫শত ২৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাবেক অধ্যক্ষ জি এম ওসমান গণি দোয়াত কলম প্রতীকে নিয়ে ১০ হাজার ৯শত ৬৮ ভোট পেয়েছেন, লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে এড. আজিবর রহমানর ৯৬৪ ভোট পেয়েছেন। অপর দিকে ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রভাষক সাঈদ উজ জামান সাঈদ টিউবওয়েল প্রতীক নিয়ে ৩২ হাজার ৮শত ৯৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স.ম. আব্দুস সাত্তার তালা প্রতিক নিয়ে ২৪ হাজার ভোট পেয়েছেন, উড়োজাহাজ প্রতীক নিয়ে শেখ মিজানুর রহমান ৯ হাজার ৬৪ ভোট, চশমা প্রতীক নিয়ে শেখ ফারুক হোসেন ৯৫৭ ভোট পান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে খালেদা আইয়ুব ডলি ৪৫ হাজার ৯শত ৭১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী পাপিয়া হক ১৫ হাজার ৪শত ৯৯ ভোট পেয়েছেন, পদ্মফুল প্রতীক নিয়ে নুরজাহান পারভীন ঝর্ণা ১৩ হাজার ১শত ভোট, ফুটবল প্রতীক নিয়ে নাফিজা সুলতানা ৮ হাজার ৪৬ ভোট পান।
সাতক্ষীরা সদরঃ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সাতক্ষীরা সদরে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছে আসাদুজ্জামান বাবু। সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নৌকা প্রতীকের আসাদুজ্জামান বাবু ৬২ হাজার ৭৭৩ ভোট পেয়েছেন।
তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দী বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস প্রতীকের এস.এম শওকত হোসেন পেয়েছেন ৩৪হাজার ৩৫৮ ভোট। অপর বিদ্রোহী প্রার্থী মোটর সাইকেল প্রতিকের গোলাম মোরশেদ পেয়েছেন ২৭ হাজার ৫১৭ ভোট।
ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি টিউবওয়েল প্রতীকের মারুফ তানভীর হুসাইন সুজন ৪৫ হাজার৬১৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তালা প্রতীকের মিজানুর রহমান মিজান ৩৪ হাজার ৩৬৫ ভোট, মাইক প্রতিকের শাহজাহান আলী ১৫ হাজার ৩৭২ ভোট, চশমা প্রতীকের রাশেদুজ্জামান রাশি ১১ হাজার ৬৯৬ ভোট, টিয়া পাখি প্রতীকের শেখ তামিম আহমেদ সোহাগ ১০ হাজার ৩৫ ভোট এবং উড়োজাহাজ প্রতীকের শেখ আক্তার হোসেন ৭হাজার ৩২ ভোট পেয়েছেন।
এদিকে মহিলা পদে বেসরকারভাবে যারা নির্বাচিত হয়েছেন কহিনুর ইসলাম। তিনি প্রজাপ্রতি প্রতীক নিয়ে ৬০ হাজার ৬১০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কলস প্রতীকের তহমিনা ইসলাম ৩১ হাজার ৪০৮ ভোট এবং অপর প্রার্থী ফুটবল প্রতীকের সোনিয়া পারভীন শাপলা ২৯ হাজার ৯৭৮ ভোট পেয়েছেন।

দেবহাটা: দেবহাটায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সুষ্ঠু সুন্দর ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হয়েছে। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল গণি। ভাইস চেয়ারম্যান সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান সবুজ। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জিএম স্পর্শ।
রবিবার সকাল ৮টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হলেও প্রথমে উপস্থিতির হার ছিল খুবই কম। বেলা বাড়ার পর থেকে কিছুটা বাড়তে থাকে ভোটাদের সংখ্যা। এমনকি দুপুরের পরবর্তী সময়েও কিছুটা উপস্থিতির হার লক্ষ্য করা যায়। তবে ভোট কেন্দ্রে উপস্থিতি বেশি না থাকলেও কেন্দ্রর বাহিরে ছিল ব্যাপক সমাগম।
দেবহাটার ৪০টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। চেয়ারম্যান পদে আব্দুল গনি নৌকা প্রতীক পেয়েছে ২৪৭৬৫টি ভোট, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স ম গোলাম মোস্তফা আনারস প্রতীক ১৬২৯৫টি, মাহবুব আলম খোকন ঘোড়া প্রতীক ৩৫৫৫টি, সাঈদ মাহবুর রহমান মটরসাইকেল প্রতীক ২৩৮৬ ও অজিহার রহমান আম প্রতীক ১০৮১ ভোট পেয়েছে।
ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হাবিবুর রহমান সবুজ তালা প্রতীক পেয়েছে ২১২১৫ ভোট, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মিজানুর রহমান মিন্নুর উড়োজাহাজ প্রতীক ১৩৪১৮, মনিরুল ইসলাম মনি টিউবওয়েল প্রতীক ৯৩৪১, আনিছুর রহমান বকুল চসমা প্রতীক ৪৩৩৪ ও রিয়াজুল ইসলাম আম প্রতীক ২৩৩ ভোট পেয়েছে।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী জি এম স্পর্শ কলস প্রতীক পেয়েছে ১৭৬৫৮ ভোট, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আমেনা রহমান পদ্মফুল প্রতিক ১৫৫৯০, প্রিয়াংকা প্রজাপতি প্রতিক ৮৪২৪, আফরোজা পারভীন ফুটবল প্রতিক ৬১১০ ভোট পেয়েছে।
কলারোয়া: সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে কলারোয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী লাল্টু প্যানেল বিজয়ী হয়েছেন। বেসরকারি ফলাফলে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী আমিনুল ইসলাম লাল্টু, ভাইস চেয়ারম্যান পদে কাজী আসাদুজ্জামান সাহাজাদা ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে শাহনাজ নাজনীন খুকু জয়লাভ করেছেন।
চেয়ারম্যান পদে আনারস প্রতীকে বিজয়ী আমিনুল ইসলাম লাল্টু পেয়েছেন ৭১,৭৯১ভোট। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আ.লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের ফিরোজ আহম্মেদ স্বপন পেয়েছেন ৩৭,২১১ভোট। তাদের প্রাপ্ত ভোটের ব্যবধান ৩৪,৫৮০ভোট।
ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী কাজী আসাদুজ্জামান সাহাজাদা উড়োজাহাজ প্রতীকে পেয়েছেন ৫৮,৭৮৭ ভোট। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী এইসএম আরাফাত মাইক প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৪৮,৫৪৮ভোট। তাদের প্রাপ্ত ভোটের ব্যবধান ১০,২৩৯ভোট।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী শাহনাজ নাজনীন খুকু হাঁস প্রতীকে পেয়েছেন ৫৮,৪৬৯ভোট। বিজয়ী প্রার্থী খুকুর চেয়ে ১৮,৩০৪ ভোট কম পেয়ে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সেলিনা আনোয়ার ময়না পেয়েছেন ৪০,১৬৫ভোট। অপর প্রার্থী ফুটবল প্রতীক নিয়ে রাজিয়া সুলতানা দুলালী পেয়েছেন ৮,৪৫৩ভোট।
২৪মার্চ রবিবার সকাল ৮টা থেকে বিরতীহীনভাবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত উপজেলার ৭৫কেন্দ্রের ৪৯৬টি বুথে ভোট গ্রহণ হয়। মোট ভোটার ছিলো ১,৮৫,৭৩০জন। চেয়ারম্যান পদে মোট ভোট পড়েছে ১,১১,০৭৬টি। এর মধ্যে ভোট নষ্ট হয়েছে ২,০৭৪টি। ফলে বৈধ ভোট পড়েছে ১,০৯০০২টি। চেয়ারম্যান পদে ভোট পড়েছে শতকরা ৫৯.৮০ ভাগ।
পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোট ভোট পড়েছে ১,১০,৯৭২টি। এর মধ্যে ভোট নষ্ট হয়েছে ৩,৬৩৭টি। ফলে বৈধ ভোট পড়েছে ১,০৭৩৩৫ টি। ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোট পড়েছে শতকরা ৫৯.৭৪ ভাগ। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোট ভোট পড়েছে ১,১১,০২৬টি। এর মধ্যে ভোট নষ্ট হয়েছে ৩,৯৩৯টি। ফলে বৈধ ভোট পড়েছে ১,০৭০৮৭ টি। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোট পড়েছে শতকরা ৫৯.৭৭ ভাগ।
রাত সাড়ে ৯টার দিকে কলারোয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদুর রহমান বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম লাল্টু, ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কাজী আসাদুজ্জামান সাহাজাদা ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সাবেক ছাত্রলীগ নেত্রী শাহনাজ নাজনীন খুকুকে বিজয়ী ঘোষণা করেন। এদিকে, দু’একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।
তালাঃ তালায় ৩য় ধাপের ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার সকাল ৮টা থেকে উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের মোট ৯৩ টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে।
উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন তালা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, টানা ৩ বারের উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ঘোষ সনৎ কুমার। ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) হিসেবে উড়োজাহাজ প্রতীকে সরদার মশিয়ার রহমান এবং ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা) কলস প্রতীকে মুরশিদা পারভীন পাঁপড়ী।
উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, তালায় মোট ভোটার সংখ্যা ২লক্ষ ৩৭ হাজার ৪৬৫। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১লক্ষ ১৯ হাজার ২৮৫ জন এবং মহিলা ভোটার ১লক্ষ ১৮ হাজার ১৬১ জন। তালা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে ঘোষ সনৎ কুমার ৫০ হাজার ৮৪০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী এমএম ফজলু হক হক আনারস প্রতীকে পেয়েছন ৪৮ হাজার ৫৫৬ ভোট।
ভাইস চেয়ারম্যান পদে উড়োজাহাজ প্রতীকে সরদার মশিয়ার রহমান ৫০ হাজার ২৫০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. ইখতিয়ার হোসেন টিউবওয়েল প্রতীকে ৩০ হাজার ৩১২ ভোট।
এছাড়া মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে কলস প্রতীক নিয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মুরশিদা পারভীন পাঁপড়ি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হলেন হাঁস প্রতীকের সাকিলা ইসলাম জুঁই।


আশাশুনিঃ ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আশাশুনিতে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছে এবিএম মোস্তাকিম। ভাইস চেয়ারম্যার পুরুষ ও মহিলা পদে বেসরকারভাবে যারা নির্বাচিত হয়েছেন তারা হলেন, অসীম বরণ চক্রবর্তী ও মোসলেমা খাতুন।
আশাশুনিতে উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে নৌকা প্রতীকের এবিএম মোস্তাকিম পেয়েছেন ৭৫ হাজার ৫৪১ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস প্রতিকের শহীদুল ইসলাম পিন্টু পেয়েছেন ৪০হাজার ৭০৩ভোট।
ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে জেলা টিউবওয়েল প্রতীকের অসীম বরণ চক্রবর্তী ৪৪ হাজার ৭৫৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী চশমা প্রতীকের সাহেব আলী সরদার ২৬হাজার ৭৭৩ ভোট, টিয়া পাখি প্রতীকের মো ফিরোজ ১৫হাজার ৭০ভোট, উড়োজাহার প্রতীকের জিএম আক্তারুজ্জামান ১২ হাজার ৪৪৬ ভোট, মাইক প্রতীকের স.ম সেলিম রেজা ৭ হাজার ২৯০ ভোট, তালা প্রতীকের মতিলাল সরকার ৬ হাজার ৩৮৫ ভোট এবং বই প্রতীকের আনিছুর রহমান ১হাজার ৩৭৫ ভোট পেয়েছেন।
এদিকে মহিলা পদে বেসরকারিভাবে মোসলেমা খাতুন বিজয়ী হয়েছেন। তিনি কলস প্রতীক নিয়ে ৬৯ হাজার ৬৮৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ফুটবল প্রতিকের হেনা গাজী ৪৩ হাজার ১৮৯ ভোট পেয়েছেন।

 

 

শ্রীপুর উপজেলাকে আধুনিক ও মাণবিক উপ-শহর হিসেবে গড়তে চান নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান সামসুল আলম
                                  

আতাউর রহমান সোহেল,গাজীপুর প্রতিনিধি ঃ শ্রীপুর উপজেলাকে আধুনিক ও মানবিক উপ-শহর হিসেবে গড়তে চান নব-নির্বাচিত শ্রীপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এড.সামসুল আলম প্রধান ।দলমত নির্বিশেষে জাতি,ধর্ম বর্ণ সকল কিছু ভুলে শ্রীপুরের সকল জনগণকে সাথে নিয়ে তিনি গাজীপুর -৩ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন সবুজের স্বপ্নকে বাস্তবায়িত করার লক্ষ্যে শ্রীপুরকে গড়তে চান আধুনিক ও মানবিক উপ-শহর হিসেবে ।যে উপ-শহর হবে নেশা,মাদক ,সন্ত্রাশ, চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি , বাল্যবিবাহ ও দারিদ্র মুক্ত উপ-শহর । তৃতীয় ধাপের পঞ্চম উপজেলা নির্বাচন গত ২৪শে মার্চ স্বতন্ত্র প্রার্থী সামসুল আলম প্রধান বিপুল ভোটে জয় লাভ করেন ।সামসুল আলম মটর সাইকেল প্রতিকে স্বতন্ত হিসেবে নির্বাচন করে ৭৪ হাজার ১শত ৪৫ ভোট পেয়ে তিনি চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন । তার প্রতিদন্ডী প্রার্থী নৌকা প্রতীক মনোনিত আব্দুল জলিল পেয়েছেন ৫৬ হাজার ৮শত ৮৫ ভোট ।সামসুল আলম ১৭ হাজার ২শত ৬০ ভোট বেশি পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন । শ্রীপুরে একটি পৌর সভা ও ৮টি ইউনিয়নে মোট ৩ লক্ষ ৪৬ হাজার ৩শত ৭১জন ভোটার নিয়ে গঠিত শ্রীপুর উপজেলা পরিষদ । এর মধ্য পুরুষ ভোটার ১ লক্ষ ৭২ হাজার ১৮ জন । এবং নারী ভোটার ১লক্ষ ৭৪ হাজার ৩৩৫ জন ।জানাযায়, শ্রীপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে স্বতন্ত্র প্রার্থী কর্মীসমর্থকরা ভোটারদের সাথে মতবিনিময়, উঠান বৈঠক, ফেসবুক,টুইটে জমজমাট প্রচারণা ,গণসংযোগসহ বিভিন্ন সামাজিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নিজেদের নির্বাচনী প্রচারণায় যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তা এখন বাস্তবায়নের সময় এসেছে। গত ২৪শে মার্চ নির্বাচনে শ্রীপুরের জনগন প্রমান করেছেন সততাই সর্ব উৎকৃষ্ঠ পন্থা । সামসুল আলম একজন সৎ, নিষ্ঠাবান ,ত্যাগী একজন নেতা ।তিনি দীর্ঘ ত্রিশটি বছর ধরে রাজনৈতিক অঙ্গনে যে ত্যাগ স্বীকার করেছেন জনগন ভোটের মাধ্যমে তার প্রতিদান দিয়েছেন এবং জীবনের প্রথম বারের মত জনপ্রতিনিধির স্বাদ স্পর্শ করলেন এড. সামসুল আলম প্রধান ।শ্রীপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে শ্রীপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এড.মো: সামসুল আলম প্রধান তৃণমূল নেতাকর্মীদের সমর্থনে স্বতন্ত্র হিসেবে শ্রীপুর উপজেলা চেয়ারম্যান পদে বিপুল ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন । নির্বাচনী ফলাফল ঘোষণার পরবর্তী সময়ে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে সাতখামাইর, মাওনা ,তেলিহাটি সহ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে বিজয়ী মিছিল বের করা হয়েছে ,সেই সাথে শ্রীপুরের বিভিন্ন স্থানে মিষ্টি বিতরণ করা হয়েছে । সামসুল আলম বলেন জনগন আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছে আমি শ্রীপুরকে সন্ত্রাশ ও মাদকমুক্ত এবং শ্রীপুরকে আধুনিক মডেল উপজেলা হিসেবে গড়ে তুলতে চাই । পৌঁছে দিতেচায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে উন্নয়নের বার্তা । সামসুল আলম বলেন ,শ্রীপুরে রাজনৈতিক অঙ্গনে ৪৫ বছর চলছে আমার রাজনৈতিক জীবণ ,তার মধ্য ৩০ বছর ধরে থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি । আমি সারাটি জীবণ দলের জন্য কাজ করে গেছি। শ্রীপুরের মানুষ চাই একজন সৎ ত্যাগী নেতা ও যোগ্য প্রার্থী । ত্যাগী নেতা হিসেবে আমাকে জনগণ ব্যপক ভোট দিয়ে চেয়ারম্যা হিসেবে নির্বাচিত করেছেন । আমি শ্রীপুরের সকল জনগণের পাশে থেকে কাজ করতে চাই ।তাদের বিপদে আপদে বন্ধু হিসেবে থাকতে চায় পাশে । আমি শ্রীপুরে ভোগের রাজনীতি নয় ,ত্যাগের রাজনীতি করে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করবো ।
উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে সর্বত্রই ভোটের হিসাব নিকাশ করে আমাকে যোগ্য প্রার্থী হিসেবে বেঁচে নিয়েছেন, আমি উপজেলার উন্নয়নমুখি ,সুখে দু:খে সবসময় জনগণের পাশে থেকে কাজ করতে চায় । শ্রীপুরের জনগণ আমাকে অবহেলিত এলাকার উন্নয়নে কাজ করার জন্য বিপুল ভোট দিয়ে চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত করেছেন ।

জাতীয় মানবাধিকার কমিশন চেয়ারম্যানের কক্সবাজার কারাগার পরিদর্শন
                                  

কক্সবাজার প্রতিনিধি :
কক্সবাজার জেলা কারাগার পরিদর্শন করলেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশন চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক। তিনি ৫ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টায় কক্সবাজার জেলা কারাগারে পৌঁছালে জেল সুপার বজলুর রশিদ আখন্দ, জেলার রীতেশ চাকমা ও ডেপুটি জেলার অর্পন চৌধুরী ফার্মাসিষ্ট ফখরুল আজিম চৌধুরী হেলাল কর্মকর্তারা ফুল দিয়ে স্বাগত জানান। পরিদর্শনকালে মানবাধিকার চেয়ারম্যান কারাগারের বিভিন্ন ওয়ার্ড ঘুরে দেখেন এবং বন্দীদের সাথে কথা বলেন। যাদের মামলা চালানোর সামর্থ নেই তাদের লিগ্যাল এইড কমিটির মাধ্যমে আইনী সহায়তা নেওয়া পরামর্শ দেন।
কক্সবাজার জেলা কারাগারে ধারণ ক্ষমতার চেয়ে ৮ গুন বন্দী থাকার বিষয়টি নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে নির্মানাধীন ৬ তলা ভবনের কাজ দ্রুত সমাপ্ত করার পরামর্শ প্রদান করেন। তিনি কারা অভ্যান্তরে সুন্দর পরিবেশ, মহিলা কয়েদির বাচ্চাদের জন্য শিশুপার্ক, বিশুদ্ধ পানীয় জলের সু-ব্যবস্থা, রান্নাঘর, বিভিন্ন সামাজিক ও উন্নয়নমূলক কাজের দৃশ্য, দেয়ালে মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর ভাষনের কারুকার্য, দর্শনার্থীদের জন্য অপেক্ষা ঘরসহ সার্বিক পরিস্থিতি দেখে মুগ্ধ হন এবং সন্তোষ প্রকাশ করেন। পরিদর্শনকালে আরও উপস্থিত ছিলেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের পরিচালক আল মাহমুদ ফয়জুল কবির, কাজী আরফান আশিক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আশরাফুল আফসারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা।


   Page 1 of 9
     সারাদেশ
অর্থাভাবে দুই কন্যা শিশুকে হত্যা করেছে বাবা!
.............................................................................................
কক্সবাজারের পোকখালীতে গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু ! ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার।
.............................................................................................
শ্রীপুরে প্রস্তাবিত ‘জননেত্রী শেখ হাসিনা কলেজ’ স্থাপনের উদ্যোগ শিক্ষক,সূধীজন ও সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভা
.............................................................................................
শ্রীপুরে তথ্য অধিকার আইন বিষয়ক জনঅবহিতকরন সভা অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
মোরেলগঞ্জে খড়ের গাদায় অগ্নিসংযোগ মামলার ভয়ে এলাকা পুরুষ শূন্য
.............................................................................................
সাতক্ষীরায় কয়েক কোটি টাকা নিয়ে সমিতি উধাও
.............................................................................................
মিয়ানমারের নির্মম নির্যাতনের কথা ভুলবে না বিশ্ব
.............................................................................................
কক্সবাজার শহরে র‌্যাবের সাথে‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ মাদক ব্যবসায়ী নিহত
.............................................................................................
কক্সবাজারের ঈদগাঁওতে দাখিলে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থী নিহত ॥ বাসে আগুন-সড়ক অবরোধ
.............................................................................................
কচুয়া প্রেসক্লাবের ৩ যুগপূর্তি উৎসব অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
দুই হাত-দুই পা কাটা, তবু মানুষ হওয়ার স্বপ্ন দেখছে কক্সবাজারের মহেশখালীর সালাহ্ উদ্দীন
.............................................................................................
শ্রীপুরে স্কুলে স্কুলে চলছে অনৈতিক পরীক্ষা
.............................................................................................
শ্রীপুরে কিশোর-কিশোরীদের সচেতনতা বিষয়ক সভা
.............................................................................................
সাতক্ষীরায় ৭উপজেলা পরিষদ নির্বাচন// ৫৯৭ টি কেন্দ্রে ভোটের ফলাফল
.............................................................................................
শ্রীপুর উপজেলাকে আধুনিক ও মাণবিক উপ-শহর হিসেবে গড়তে চান নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান সামসুল আলম
.............................................................................................
জাতীয় মানবাধিকার কমিশন চেয়ারম্যানের কক্সবাজার কারাগার পরিদর্শন
.............................................................................................
নাটোরের সিংড়ায় শীতবস্ত্র বিতরণ
.............................................................................................
রংপুরে অ্যাডভোকেট রথীশ হত্যার রায় : স্ত্রী স্নিগ্ধার মৃত্যুদন্ড
.............................................................................................
সম্পাদকের পিতা আবদুল হামিদের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী পালিত
.............................................................................................
বাগেরহাটে ভূমিদস্যুদের গ্রাসে তিন কোটি টাকার সরকারী সম্পত্তি
.............................................................................................
আটোয়ারীতে সিআরডি কর্তৃক খাদ্য ও কাপড় বিতরণ
.............................................................................................
দৌলতপুর বাঘুটিয়া ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপর্কমের অভিযোগ
.............................................................................................
আপনি জানেন কি?
.............................................................................................
কার্টুন
.............................................................................................
আসিফার আইনজীবীকে ধর্ষণ ও খুনের হুমকি
.............................................................................................
এস এম তৌহিদ রুপালী পর্দার বিখ্যাত প্রযোজক হতে চান
.............................................................................................
বিশ্বমুক্ত গনমাধ্যম দিবস পালিত
.............................................................................................
২৮ মে সম্পাদকের পিতার ২য় মৃত্যুবার্ষিকী
.............................................................................................
উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি রামগঞ্জ পৌর বাস টার্মিনালে
.............................................................................................
রামগড়-সাবরুম স্থল বন্দর পর্যটন শিল্পে ভূমিকা রাখবে : শাহজাহান খান
.............................................................................................
ঘুষ দুর্নীতিমুক্ত ভূমি ইউনিয়ন অফিস হতে পারে দেশের আদর্শ মডেল
.............................................................................................
যুবলীগ নেতা মনিরুল হত্যা মামলার বিচার শুরু
.............................................................................................
ধনবাড়ীতে পালাক্রমে ধর্ষণ ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী অন্তসত্ত্বা
.............................................................................................
কক্সবাজারে অনুমোদনহীন অপরিকল্পিত বহুতল ভবন ভাঙতে শুরু করেছে
.............................................................................................
বাংলা নববর্ষ উদ্ভবের ইতিহাস-কথা
.............................................................................................
স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ইসলামী ব্যাংকের আলোচনা ও দোয়া
.............................................................................................
গভীর শ্রদ্ধায় পালিত হলো জাতির শ্রেষ্ঠ অর্জন মহান স্বাধীনতা দিবস
.............................................................................................
ব্যবসায়ীদের উদ্যোগে ব্রীজ ও সড়কের নির্মান কাজ শুরু
.............................................................................................
বই উপহার দিচ্ছেন প্রথম আলো’র প্রবীন সাংবাদিক
.............................................................................................
নেয়ামুল হক শাহীনের ইন্তেকাল
.............................................................................................
ধেয়ে আসছে শৈত্যপ্রবাহ অসহায় শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ান
.............................................................................................
আধুনিক প্রযুক্তি শীর্ষক কৃষক প্রশিক্ষন ও বীজ বিতরন
.............................................................................................
মানবাধিকার খবর ও প্রাসঙ্গিক কিছু কথা
.............................................................................................
মাতৃহীন শিশু নুসরাত বাঁচতে চায়
.............................................................................................
এলাকার উন্নয়নে কাজ করতে চায় অধ্যাপক ডা: রফিকুল কবির লাবু॥
.............................................................................................
প্রমত্তা তালতলা চাঁদকাঠী গাওখালী নদী দেড় লক্ষাধিক মানুষ বন্দি
.............................................................................................
শ্রীপুরে লেভেল ক্রসিংয়ে জনতার ঝুঁকিপূর্ণ পাড়াপার
.............................................................................................
বর উধাও, বিয়ের পিড়িতে বড় ভাই
.............................................................................................
নারী উন্নয়ন ফোরামের শিক্ষা উপকরন বিতরণ
.............................................................................................
এমপি‘র রোষানলে অর্ধশতাধিক সংখ্যালঘু পরিবার
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

Editor & Publisher: Rtn. Md Reaz Uddin
Corporate Office
53,Modern mansion(8th floor),Motijheel C/A, Dhaka
E-mail:manabadhikarkhabar34@gmail.com,manabadhikarkhabar34@yahoo.com,
Tel:+88-02-9585139
Mobile: +8801978882223 Fax: +88-02-9585140
    2015 @ All Right Reserved By manabadhikarkhabar.com    সম্পাদকীয়    Adviser List

Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]