| বাংলার জন্য ক্লিক করুন

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   শেয়ার করুন
Share Button
   অধিকারের প্রতিবেদন
  পুলিশের নাকের ডগায় ঝাড় ফুকের ব্যবসা ॥ প্রশাসন নিরব আজাদ রহমান
  3, June, 2017, 1:46:51:AM

পুলিশের নাকের ডগার সামনে ঝাড় ফুকের ব্যাবসা। কিছু অসাদু লোক নিরহ মানুষকে ঠকাচেছ। অসাধু লোক ধমের লেবাস পড়ে দাবিয়ে বেড়াচ্ছে এ সমাজে। একাতারে আছে মসজিদের হুজুর লেবাসদারী পীর, হিন্দু ধমীর লোক এবং একশ্রেন্নির প্রতারক চক্র। কিছু ইল্রেকটনিক মিডিয়া ও পত্রিকা বিঙ্গাপন দিয়ে উংসাহ যোগাচ্ছে পুলিশ দেখে না দেখার ভুমিকা পালন করছে। খোদ রাজধানী থেকে আরন্ভ করে পল্লী এলাকার এর বিস্তার, মাই টিভি বিঙ্গাপন  প্রচার করে থাকে প্রতারনার দায়ে জেল খেটেছে লিটন দেওয়ান এ ছাড়া বিভিন্ন পীড় মুরছিদের ফোন নন্বার দিয়ে বিঙ্গাপন। রাজধানী নারিন্দা এলাকায় পীর সাহেবের গলি নামে একটি এলাকা পরিচিত কয়েক গজ দুরের নারিন্দা পুলিশ ফাড়ি. খোজ নিয়ে জানা যায় চান মিয়া নামের একজন পীড় এলাকায় ছিল সে বহু আগে মারা গেছে কিন্তু তার এ ব্যাবসা চালিয়ে যাচ্ছে তার স্ত্রী ছেলে ও ছেলে বউ, তারা কোন কামিলদার নয়। তাদের দরবারে আসা আলেয়া বেগম নামে এক মহিলা থেকে যানা গেল দীর্ঘ দিন সে এখানে আসতেছে তার ছেলে নিখোঁজ সে জন্য। কিন্তু দোয়া তাবিজ দিয়ে যাচেছ কোন কাজ হয়নি আরো বহু লোক তদবিরের জন্য আছে মাসের পর মাস ঘুরতেছে কোন ফল পায়নি। ১৫৪, উত্তর যাত্রাবাড়ী ইয়াসা-আতুল উলমা মাদ্রসা হাফেজ হাবিবুর রহমান নামের এক হুজুর মাদ্রাসা খোলে কিছু ছাত্র পড়ায় সে ফাঁকে সন্ধ্যায় জন প্রতি ১০০ টাকা করে নিয়ে ঝাড় ফুক করে থাকে । জানা  গেল ঝরনা নামের এক মহিলা দীর্ঘ দিন সে এখানে আসতেছে তার স্বামী নিখোঁজ সে জন্য। কিন্তু দোয়া তাবিজ দিয়ে যাচেছ কোন কাজ হয়নি আরো বহু লোক তদবিরের জন্য আছে মাসের পর মাস ঘুরতেছে কোন ফল পায়নি। যাত্রাবাড়ী থানার দুরত্ব মাত্র ২০০ গজ দুরত্ব থানা অফিসার ইনচাজ আনিসুর রহমানের সাথে কথা বলে জানা গেল এ সম্পর্কে সে কিছু জানে না। মুন্সিগঞ্জ জেলার টংগিবাড়ী থানার উত্তর সোনারং গ্রামের  মকিম পোদ্দারের ছেলে দেলোয়ার পোদ্দার জ্বীন ডাকে এলাকায় বলে বেড়ায় জ্বীন তাকে বাবা ডেকেছে, তাই জ্বীনকে যা বলে তাই শুনে। স্বামী স্ত্রী অমিল থাকলে মিল করে দেওয়া, মনের মানুষকে কাছে নিয়ে আসা, পরকীয়া প্রেম আসক্তি থেকে মুক্ত করা, ব্যবসা লোকসান সব ধরনের সম্যসার  ২৪ ঘন্টার মধ্যে সমাধান, ঘটনার সত্যতা যাচাই করার জন্য বিউটি বেগম এক মহিলার সাথে আলাপ করে জানা গেল ৭ মাস হয়েছে দেলোয়ার পোদ্দারকে ১৫০০০ টাকা দিয়েছে। স্বামী বিদেশ থাকে যোগাযোগ নেই । ১৫ দিনের মধ্যে জ্বীনের মাধ্যামে যোগাযোগ করিয়ে দিবে। কিন্তু ৭ মাস হয়েছে কোন কাজ হয়নি টাকাও ফেরত দেয় না আজ কাল সময় ক্ষেপন করছে। লোক লজ্জার ভয়ে কাউকে কিছু জানাতে পারেছে না, টাকা ফেরত চাইলে জ্বীনদ্বারা বড় ধরনের ক্ষতি করবে বলে ভয় দেখায় তা ছাড়া কেউ তার প্রতি কোন ক্ষোভ দেখালে সে বলে আমাকে মনে মনে বকা দিয়েছেন তাই কাজ দেরী হবে তার জ্বীন তাকে বলেছে মনে মনে গালি দেন এছাড়া তার সহযোগী হিসাবে কাজ করে জয় সে ও বিভিন্ন লোকের নিকট বিভিন্ন নাম বলে। এ সুযোগ নিচ্ছে প্রতারক চক্র। বিভিন্ন পত্রিকায় বাসে এবং টিভিতে প্রচার করে থাকে মনের মানুষের সাথে মিল, স্বামী স্ত্রীর অমিল, পরকীয়া প্রেম, ব্যবসা লোকসান সব ধরনের সম্যসার  ২৪ ঘন্টার মধ্যে সমাধান। টংগিবাড়ী থানার  অফিসার ইনচার্জ আলমগীর হোসেনের সাথে কথা বলে জানা গেল এ সম্পর্কে সে কিছু জানে না। ঢাকা শহরে প্রতি এলাকায় দোয়া তাবিজের ব্যবসা জমজমাট। এলকার কিছু বখাটে মাসুহারা নিচেছ প্রতারক চক্র থেকে। জুরাইন আলম মার্কেটের নিকট মুসা ফকির ও হারুন ফকির নামে পরিচিত দু’জন বাবা ছেলে সকাল ১০ থেকে ১ পর্যন্ত এবং বিকাল ৪ থেকে সন্ধ্য পর্যন্ত তাবিজ তদবির করে থাকে। পিছিয়ে নেই অধিকাংশ এলাকার মসজিদের ইমাম সাহেবরা। জুরাইন কমিশনার রোডের মোটকা হুজুর নামে পরিচিত তাবিজের মুল্য ৫০০ টাকা থেকে ২০০০ টাকা পর্যন্ত এবং একই এলাকায় কাছমিরি হুজুর নামে পরিচিত আর এক হুজুর তার রেট ২০০০ টাকা থেকে  ৫০০০ টাকা পর্যন্ত। দু’জনে এ ব্যবসা করে ঢাকা শহরে বাড়ী গাড়ী সব করেছে কিন্তু ঠিক রাখতে পারেনি মসজিদের ইমামতি, চাকুরি হারিয়েছে। কদমতলী থানার  ওসি ওয়াজেদ আলীর সাথে কথা বলে জানা গেল এ সম্পর্কে সে কিছু জানে না এবং জানার প্রয়োজনও মনে করে না কারন তার অনেক কাজ। ধোলাইপাড়ের বিদ্যুৎ অফিসের পাশে মসজিদের ইমাম লিয়াকত আলী মাঝে মাঝে সে তাবিজ  দিয়ে থাকে বলে জানা যায়। কেরানীগঞ্জের মডেল টাউনের কালী সাধক রাধিকা কবিরাজ সহকারী হিসেবে কাজ করে রিপন হাওলাদার ১০১ টাকা ফ্রি নিয়ে থাকে সমাস্যা শোনার জন্য তাবিজ দেওয়ার আলদা টাকা । কাজ শেষ হলে মোটা অংক নিয়ে থাকে, জানা যায় খরচের কথা বলে যে টাকা নেয় এটা তার লাভ। কাজের নামে কিছু নেই, প্রত্যেক প্রতারক বেশী ঝামেলা দেখলে রাতের অন্ধকারে পালিয়ে যায় এবং মোবাইল ফোন বন্ধ করে দেয়। বেশীর ভাগ লোক সহজ সরল বা যখন হতাশ হয়ে পড়ে তখন এ প্রতারক চক্র হাতিয়ে নেয় টাকা পয়সাসহ সর্বশ্য। এছাড়া গাজীপুরের রাজু ও রাশেদ পিছিয়ে নেই ব্যবসায়। তবে গোপনে খবর নিয়ে জানা যায় প্রত্যেক থানায় মাস শেষে চাঁদা প্রদান করে থাকে এ প্রতারক চক্র। গেন্ডারিয়া মেলবেরাক এলাকায় পুলিশ ফাড়ি থেকে ১০ গজ দুরে রাড়ী বাড়ী বা শীতল বাড়ী বলে পরিচিত এখানে চলে সকাল বিকাল ঝাড় ফুক সহ বিভিন্ন ধরনের তাবিজ বিক্রয়।



সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : 117        
   আপনার মতামত দিন
     অধিকারের প্রতিবেদন
রোটারি বাংলাদেশের নতুন গভর্ণরের দায়িত্ব গ্রহন
.............................................................................................
চাচা শ্বশুরের নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ মরিয়ম
.............................................................................................
এতিমদের ইফতারের মাধ্যমে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘তৃপ্ত দৃশ্য’র যাত্রা শুরু
.............................................................................................
পুলিশের নাকের ডগায় ঝাড় ফুকের ব্যবসা ॥ প্রশাসন নিরব আজাদ রহমান
.............................................................................................
মে দিবস মেহনতী মানুষের মুক্তির বারতা শ্রমিকের ন্যায্য হিস্যা প্রাপ্তির স্বীকৃতি
.............................................................................................
মায়ের কোলে ফিরতে চায় শিশু সুমন
.............................................................................................
নারী ও শিশু উদ্ধারে মানবাধিকার খবর’র ভূমিকা প্রসংশনীয়
.............................................................................................
পুরুষ নির্যাতনের হাতিয়ার ‘নারী নির্যাতন’ মামলা
.............................................................................................
পরিবারে দুমুঠো অন্ন যোগাতে শিশুরা বিভিন্ন পেশায়
.............................................................................................
মিয়ানমারে বিলুপ্ত মানবতা
.............................................................................................
অধিকারের মাসিক প্রতিবেদন
.............................................................................................
মানবাধিকার সংগঠন অধিকারের প্রতিবেদন
.............................................................................................
খানসামায় হাট-বাজারে অবাধে চলছে মাদক ব্যবসা
.............................................................................................
কালিগঞ্জে স্বামী কর্তৃক স্ত্রী পাচারের অভিযোগ
.............................................................................................
এক মায়ের আকুতি আমার ছেলেকেফিরিয়েদিন
.............................................................................................
কে শুনবে অনিলের আর্তনাদ
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধু জাতির জীবনে বসন্ত এনেছিলো মুক্তিযোদ্ধা মো. আশকর আলী
.............................................................................................
দেশের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে না- ড. মিজানুর রহমান
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

Editor & Publisher: Rtn. Md Reaz Uddin
Mobile:+88-01711391530, Email: md.reaz09@yahoo.com Corporate Office
53,Modern mansion(8th floor),Motijheel C/A, Dhaka
E-mail:manabadhikarkhabar@gmail.com,manabadhikarkhabar34@yahoo.com,
Tel:+88-02-9585139
Mobile: +8801978882223 Fax: +88-02-9585140
    2015 @ All Right Reserved By manabadhikarkhabar.com    সম্পাদকীয়    Adviser List

Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]