| বাংলার জন্য ক্লিক করুন

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   শেয়ার করুন
Share Button
   সম্পাদকীয়
  নারীর ক্ষমতায়ন ও অভিজ্ঞতাকে মানুষের সেবায় কাজে লাগাতে হবে
  9, October, 2016, 2:15:38:PM

মানবাধিকার খবরকে হাউস বিল্ডিং ফাইনান্স কর্পোরেশনের অতিরিক্তি ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. দৌলতুন্নাহার খানম

নারীর ক্ষমতায়ন ও অভিজ্ঞতাকে মানুষের সেবায় কাজে লাগাতে হবে

বিশ্বের অনেক দেশেই ব্যাংক ও আর্থিক খাত ব্যবস্থাপনায় নারীরা ভাল করছে। এদেশেও এ খাতে ক্যারিয়ার গড়তে মেয়েরা এগিয়ে আসছে। তবে কর্পোরেট জগতে নারীর এই জয়ধ্বনী শুনতে অপেক্ষা করতে হয়েছে অনেকগুলো বছর। আনিসা হামেদকে দিয়ে ব্যাংকিং এবং শীর্ষ পদে নারীর নেতৃত্ব শুরু। তাঁর দেখানো পথে  এখন যারা হাঁটছেন তাঁদের লাইন ক্রমেই দীর্ঘতর হচ্ছে। সমান যোগ্যতা আর পূর্ণ আত্মবিশ্বাস নিয়ে তাঁরা প্রতিষ্ঠানের উন্নতিতে সাফল্যের প্রমাণ দিচ্ছেন। এঁদেরই একজন ড. দৌলতুন্নাহার খানম। যিনি দীর্ঘ চ্যালেজিং পথ পাড়ি দিয়ে বর্তমানে বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইনান্স কর্পোরেশন (বিএইচবিএফসি)- এর ব্যবস্থাপনা পরিচালকের অতিরিক্তি দায়িত্ব পালন করছেন।

 

 ১৯৮৪ সালের ১৬ মে সিনিয়র অফিসার হিসেবে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকে যোগদানের মাধ্যমে তাঁর ব্যাংকিংয়ে ক্যারিয়ার শুরু। কৃষি ব্যাংক ও পরবর্তীতে বিএইচবিএফসি’র বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন শেষে ২০১৫ সালের ২৬ মার্চ তিনি জেনারেল ম্যানাজার পদে পদোন্নতি পান। বিএইচবিএফসি’র  অর্গানোগ্রামে ডিএমডি পদ না থাকায় সিনিয়র জিএম হিসেবে তিনি দ্বিতীয় দফা এমডির অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন। চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রথম বার এবং ১০ মার্চ থেকে অদ্যাবধি দ্বিতীয় বার বিএইচবিএফসি’র শীর্ষ পদে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করে আসছেন তিনি।

ড. দৌলতুন্নাহার খানম ঃ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে আমি প্রথমেই বলতে চাই, তিনি এবং তাঁর সরকারের সময়োপযোগী উদ্যোগের ফলে বাংলাদেশ নারীর ক্ষমতায়নে বিশ্বে অনন্য নজির স্থাপন করতে পেরেছে। বাংলাদেশে নারীর ক্ষমতায়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অবদান অনস্বীকার্য। নারী-পুরুষ সমানতালে এগুতে হবে। তা না হলে দেশ, জাতি, সমাজ এগুবে না। সিংহভাগ নারীকে রাষ্ট্রীয় কর্মযজ্ঞের বাইরে রেখে রাষ্ট্র উন্নতি করতে পানে না। যতবেশি নারীর ক্ষমতায়ন বৃদ্ধি পাবে, দেশ ততোটাই উন্নতি শিখড়ে পৌঁছবে। বিশ্বব্যাপি নারীর এই ক্ষমতায়নে একজন নারী হিসেবে আমি অবশ্যই গৌরববোধ করছি। এবং পরবর্তীতে বেগম রায়হানা আনিসা হামেদ আলীকে সরকার যখন মহিলা এমডি হিসেবে পদায়ণ করে, তখন থেকে এ পেশার প্রতি আগ্রহ বেড়ে যায়।

ড. দৌলতুন্নাহার খানম ঃ উন্নয়নশীল বিশ্বের সাথে তারমিলিয়ে বাংলাদেশও এগিয়ে যাচ্ছে। আধুনিক জ্ঞান-বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির স্বর্ণযুগ চলছে। আমাদের মেয়েরা সবকিছুর সাথেই সমান তালে সামনে এগিয়ে যাচ্ছে। নিজেদের ক্যারিয়ার গড়তে কঠোর পরিশ্রম করছে। নারী শিক্ষায় অভূতপূর্ব অগ্রগতি এসেছে। বর্তমানে অনেকগুলো ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান হওয়ায় নারীদের কাজের ক্ষেত্র বেড়েছে। সবক্ষেত্রেই নারীরা যোগ্যতার পরীক্ষায় মেধার পরিচয় দিচ্ছে। সময়ের পরিবর্তনে নতুন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হচ্ছে। এতে সফলতা অর্জন করেই উচ্চ পর্যায়ে যেতে পারছে বা দায়িত্ব পালন করতে সক্ষম হচ্ছে।

ড. দৌলতুন্নাহার খানম ঃ আমি রিসেন্টাল জাপান ঘুরে এলাম। আমার কাছে মনে হত, আমাদের দেশে অধিক জনসংখ্যা বোধহয় একটি বড় সমস্যা। জাপান সফরের পর আমার ধারনা পুরোপুরি পাল্টে গেছে। আসলে মানুষ কোন সমস্যার নয়। মানুষগুলোকে চালানোটাই আসল বিষয়। আমাদের ১৬ কোটি হাতকে দক্ষ কর্মীর হাতে পরিণত করতে হবে। অফিস টাইমে জাপানের প্রতিটি স্টেশন প্রচুর মানুষের ভিড় লক্ষ্য করেছি। এরকম কিছু দৃশ্য ভিড়িও করেও এনছি। হাজার হাজার মানুষ কর্মক্ষেত্রের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। কোথাও কোন বিশৃঙ্খলা নেই। মানুষ হেঁটে যাচ্ছে, গাড়িতে যাচ্ছে। তাদেও শৃঙ্খলাবোধ থেকে আমাদের অনেক কিছু শেখার আছে।

ড. দৌলতুন্নাহার খানম ঃ বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইনান্স কর্পোরেশন একটি পুরাতন ও ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান। এই প্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন পদে আমার প্রায় বিশ থেকে বাইশ বছরের অভিজ্ঞতা রয়েছে। তবে দ্বিতীয়বারের  মতো শীর্ষ পদে। অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন অবশ্যই গৌরবের। আপনাারা জানেন, এখানে একটি শক্তিশালী পরিচালনা পর্ষদ আছে। পরিচালনা পর্ষদেও সঠিক ও সময়োপযোগী দিক-নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা কাজ করছি। এখানকার কর্মীরা কাজের ক্ষেত্রে দক্ষ। অনেকেই আছেন বেশ অভিজ্ঞ। পরিচালনা পর্ষদ ও আমার সহকর্মীদের আন্তরিক সহযোগিতায় বিএইবিএফসি এখন বেশ গতিশীল। আইডিবি’র সহায়তায় ‘রুরাল এন্ড আরবান হাউজিং প্রজেক্ট অব বাংলাদেশ’ নামে একটি প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। এই প্রকল্পের মধ্যদিয়ে বিএইবিএফসি অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে যাবে। আপনি লক্ষ্য করবেন, অপরিকল্পিত বাড়ি নির্মাণের ফলে দেশের চাষযোগ্য জমি দ্রুত কমে যাচ্ছে। চাষযোগ্য জমি টিকিয়ে রেখে আমরা পরিকল্পিত আবাসিক ভবন নির্মাণে মানুষকে সহায়তা দেব। এর মাধ্যমে শহরের ন্যায় গ্রামেও কার্যক্রম সম্প্রসারণ করতে পারবে। আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনাও তাই। মানুষ কেন আমাদের কাছে সেবা নিতে আসবে? আমরাই সেবা নিয়ে মানুষের কাছে যাব।

ড. দৌলতুন্নাহার খানম ঃ কর্পোরেশনের একমাত্র সমস্যা অপর্যাপ্ত তহবিল। এ জন্য চাহিদা মতো ঋণ দেয়া যায় না। এ সমস্যা কারণে ২০১৫-১৬ সালে ঋণ বিতরণ কিছুটা কম হয়েছে। তবে গত ৩০ জুন  ২০০ কোটি টাকার সরকারী ঋণ পাওয়া গেছে। তাই এ বছর বিতরণের লক্ষ্যেও একটু বেশি। আমরা এবার ৩০০ কোটি টাকা বিতরণ করতে চাই। অন্যদিকে ঋণ আদায়ের পারফরমেন্স অত্যন্ত সন্তোষজনক। গত অর্থবছরে ঋণ আদায়ের পরিমাণ ছিল প্রায় ৫২৪ কোটি টাকা। আদায়ের হার ৯২ শতাংশ। চলতি অর্থবছরের আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ৫৮৩ কোটি টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। চলতি অর্থবছর ঋণ আদায় ও গুণগত উন্নয়নের উপর বেশি জোর দিয়েছি। বর্তমানে শ্রেণীকৃত ঋণের পরিমাণও কম। মাত্র ৬.৮১ শতাংশ। অচিরেই শ্রেণীকৃত ঋণের হার ৫ শতাংশের নিচে নিয়ে আসতে চাই।

ড. দৌলতুন্নাহার খানম ঃ বিএইচবিএফসির প্রতিষ্ঠা ১৯৫২ সালে। এ থেকেই এর গুরুত্ব বোঝা যায়। যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশের গৃহায়ন খাত শক্তিশালী করার লক্ষ্যে জাতির জনক শেখ মজিবুর রহমান ১৯৭৩ সালে প্রতিষ্ঠানটিকে পুনর্গঠন করেন। এ প্রতিষ্ঠান এ পর্যন্ত প্রায় ২ লাখ হাউজিং ইউনিট নির্মাণে ঋণ সহায়তা প্রদান করেছে। এক্ষেত্রে উপকারভোগীর সংখ্যা প্রায় ১৫ লাখ। বিএইচবিএফসি’কে দেশের গৃহায়ন অবকাঠামো নির্মাণ এবং নির্মাণ উপকরণ ব্যবসার পথপ্রদর্শক ও পৃষ্ঠপোষক বলতে পারেন।



সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : 367        
   আপনার মতামত দিন
     সম্পাদকীয়
ঈদুল ফিতর ঈদের আনন্দ হোক সার্বজনীন ।
.............................................................................................
মানবাধিকার ও শান্তির বারতা নিয়ে আসুক
.............................................................................................
ফটো ফিচার
.............................................................................................
২৬শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস শান্তির পথে এগিয়ে যাক স্বপ্নের পৃথিবী
.............................................................................................
মহান ২১শে ফেব্রুয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস চিরন্তন হোক অসাম্প্রদায়িক চেতনা ও প্রতিষ্ঠিত হোক মানবাধিকার সমৃদ্ধ বাংলাদেশ
.............................................................................................
স্বাগত-২০১৮ নতুন বছর হোক শান্তি ও মানবাধিকার সমৃদ্ধ
.............................................................................................
মহান বিজয়ের মাসে শপথ হোক মানবাধিকার সমৃদ্ধ বিশ্ব গড়ার
.............................................................................................
১০ নভেম্বর নূর হোসেন দিবসে বিনম্র শ্রদ্ধা
.............................................................................................
মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধান হোক
.............................................................................................
ঈদ হোক মানবতার কল্যাণে সুখের বারতা
.............................................................................................
প্রতিষ্ঠিত হোক শ্রমজীবিদের অধিকার
.............................................................................................
মানবাধিকার ও শান্তিতে উদ্ভাসিত হোক বিশ্ব মানবতা
.............................................................................................
নারীর ক্ষমতায়ন ও অভিজ্ঞতাকে মানুষের সেবায় কাজে লাগাতে হবে
.............................................................................................
মানবাধিকার খবরকে একান্ত সাক্ষাৎকারে প্রদীপ ভট্টাচার্য জঙ্গি হামলা উন্নয়ন ও মানবাধিকারের উপর চরম আঘাত
.............................................................................................
সবার উপরে মানুষ সত্য তাহার উপরে নাই
.............................................................................................
দেশে সঠিক মানবাধিকার নেই গভর্নমেন্ট বাই দ্যা পুলিশ, ফর দ্যা পুলিশ, অব দ্যা পুলিশ -ব্যারিস্টার পারভেজ আহমেদ
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

Editor & Publisher: Rtn. Md Reaz Uddin
Mobile:+88-01711391530, Email: md.reaz09@yahoo.com Corporate Office
53,Modern mansion(8th floor),Motijheel C/A, Dhaka
E-mail:manabadhikarkhabar@gmail.com,manabadhikarkhabar34@yahoo.com,
Tel:+88-02-9585139
Mobile: +8801978882223 Fax: +88-02-9585140
    2015 @ All Right Reserved By manabadhikarkhabar.com    সম্পাদকীয়    Adviser List

Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]